নতুন মাইলফলকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট নিবন্ধন ৫ লাখ ছাড়িয়ে নতুন মাইলফলক স্পর্শ করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। যদিও এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৯৬৭ প্রতিষ্ঠান ভ্যাট রিটার্ন দাখিল করে।
এনবিআরের হিসাব অনুযায়ী, চলতি মাসের ২৫ মে পর্যন্ত নিবন্ধন নিয়েছে ৫ লাখ ৬ হাজার ৯৫৪টি প্রতিষ্ঠান। গত ৯ মে নিবন্ধন ৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে।

এদিকে নিবন্ধন ৫ লাখ ছাড়িয়ে যাওয়ায় কেক কেটে এই মাইলফলক উদযাপন করা হয়েছে। রোববার এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম কেক কাটেন। এ সময় এনবিআরের ভ্যাট বিভাগের সদস্য, প্রথম সচিব ও দ্বিতীয় সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।
ভ্যাট বিভাগের হিসাব অনুযায়ী, গত ৯ মে প্রথমবারের মতো ভ্যাট নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়েছে। ২৫ মে পর্যন্ত নিবন্ধন নিয়েছে ৫ লাখ ৬ হাজার ৯৫৪টি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে ঢাকার চারটি ভ্যাট কমিশনারেটের আওতায় রয়েছে ২ লাখ ৯৩ হাজার ৬৬০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। অর্থাৎ সারাদেশে যত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভ্যাটের আওতায় আছে, তাদের মধ্যে ৫৯ শতাংশই ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকার প্রতিষ্ঠান।
হিসাব অনুযায়ী, ১১টি ভ্যাট কমিশনারেটের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেটে সবচেয়ে বেশি প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন নিয়েছে। সবমিলিয়ে এ সংখ্যা ১ লাখ ২২ হাজার ৮২৩। মোট নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২৫ শতাংশই ঢাকা দক্ষিণ কমিশনারেটের আওতায়। ঢাকা উত্তরে ভ্যাট কমিশনারেটে আছে ৮০ হাজার ৭৭৯টি প্রতিষ্ঠান। এছাড়া ঢাকা পূর্ব ও পশ্চিমে আছে যথাক্রমে ৩১ হাজার ১৫৪টি এবং ৫৮ হাজার ৯০৪টি প্রতিষ্ঠান।
রাজধানী ঢাকার পরে দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামে সবচেয়ে বেশি প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন নিয়েছে। চট্টগ্রামে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৫২ হাজার ২৭৮টি। রংপুর, সিলেট, রাজশাহী, খুলনা, যশোর ও কুমিল্লায় আছে বাকি ১ লাখ ৫৫ হাজার ৫৮০টি প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া বৃহৎ করদাতা ইউনিটে সবমিলিয়ে ১১০টি প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন নিয়েছে।
ভ্যাট বিভাগের হিসাব অনুযায়ী, নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের হার আগের চেয়ে বেড়েছে। এখন পর্যন্ত ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৯৬৭ প্রতিষ্ঠান রিটার্ন দিয়েছে। এর মধ্যে অনলাইনে ২ লাখ ৫১ হাজার ৩১টি ও ম্যানুয়ালি ৯২ হাজার ৯৩৬টি প্রতিষ্ঠান।
রিটার্ন দাখিলের ক্ষেত্রেও ঢাকার কমিশনারেটগুলো এগিয়ে রয়েছে। ঢাকার চার কমিশনারেটের মধ্যে ভ্যাট দক্ষিণ কমিশনারেটে প্রায় এক লাখের বেশি রিটার্ন দাখিল হয়। এ ছাড়া ভ্যাট উত্তর কমিশনারেটে প্রায় ৫২ হাজার, ভ্যাট পশ্চিমে প্রায় ৩৬ হাজার ও ভ্যাট পূর্বে প্রায় ২১ হাজার রিটার্ন দাখিল হয়।
ঢাকার পর সবচেয়ে বেশি প্রায় ২৬ হাজার রিটার্ন দাখিল হয় চট্টগ্রাম ভ্যাট কমিশনারেটে। এলটিইউতে ১০৮টি প্রতিষ্ঠান রিটার্ন দাখিল করে। এর মধ্যে ছয়টি ম্যানুয়াল ও ১০২টি অনলাইনে দাখিল করে।
এছাড়া রংপুর প্রায় সাড়ে ১২ হাজার, কুমিল্লা প্রায় ১০ হাজার ৭৬৮টি, রাজশাহী প্রায় ২০ হাজার, যশোর প্রায় ২০ হাজার, খুলনায় ১৯ হাজার ৬৭০টি এবং সিলেট প্রায় সাড়ে ১২ হাজার রিটার্ন দাখিল হয়।