চট্টগ্রামে স্মার্ট স্কুলবাসের যাত্রা শুরু: পাঁচ টাকায় নগরীর যে কোনো প্রান্ত থেকে স্কুলে

নগরীর যে কোনো প্রান্ত থেকে মাত্র পাঁচ টাকায় স্মার্ট স্কুলবাসে বিদ্যালয়ে যেতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন প্রযুক্তি সুবিধা দিয়ে স্মার্ট স্কুলবাসগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে সোমবার। এর উদ্বোধন করেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার তোফায়েল ইসলাম। স্মার্ট জেলা উদ্ভাবন চ্যালেঞ্জ-২০২৩ এর আওতায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ‘স্মার্ট স্কুলবাস’ নামক উদ্ভাবনী উদ্যোগ প্রথম পুরস্কার পায়।

সোমবার দুপুরে এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম মাঠে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। এ সময় বাসে নগরের ১২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ছিল। তারা প্রত্যেকেই স্মার্টকার্ড প্রেস করেই বাসে ওঠে। মঙ্গলবার সকালে শিক্ষার্থীদের নিয়ে এটি সড়কে চলবে। চলতি বছরের জন্য বাসগুলোতে প্রতিজন শিক্ষার্থী ৫ টাকার বিনিময়ে যাতায়াত সুবিধা পাবে। চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান জানান, এ বছর ভাড়া আপাতত ৫ টাকা থাকবে তবে আগামী বছর ১০ টাকা হবে। স্মার্ট স্কুলবাস নগরীর বিভিন্ন স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে অসহনীয় যানজট, অভিভাবকদের ভোগান্তি হ্রাস করবে।

পাশাপাশি অত্যাধিক যাতায়াত খরচ, জ্বালানি অপচয়, সড়ক দুর্ঘটনা, অনিরাপদ স্কুল যাত্রাসহ অভিভাবকদের কর্মঘণ্টা নষ্ট হওয়ার মতো সমস্যার সমাধান হবে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় ইতোমধ্যে ১০টি সরকারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ১০টি দোতলা বাস নগরের বিভিন্ন রুটে চলাচল করছে। আশা করছি এটিকে একটি টেকসই প্রকল্প হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে। নগরের পতেঙ্গা-হালিশহর এলাকার শিক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে আরও ১০টি বাস নামানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

দেশের প্রথম স্মার্ট জেলা গড়ার প্রত্যয়ে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধন করা স্কুলবাসে পেপারলেস ও ক্যাশলেস প্রযুক্তিসহ সকল ডিভাইস সংযুক্ত করে এ স্মার্ট স্কুল বাসের যাত্রা শুরু করেছে। শিক্ষার্থীরা বাসা উঠে বা নামার সময় হাজিরা যন্ত্রের সামনে স্মার্ট কার্ড চাপ দিলেই খুদে বার্তা পেয়ে যাবেন অভিভাবক। এ ছাড়াও ঘরে বসেই জিপিএস ট্র্যাকিং ও সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে বাস ও শিক্ষার্থীর অবস্থানও দেখতে পারবেন তারা।
জেলা প্রশাসন জানিয়েছে নগরের ১০টি স্কুলবাসে জিপিএস ট্র্যাকার, জিআইএস প্রযুক্তি, ডিজিটাল হাজিরা ডিভাইস ও আইপি ক্যামেরা স্থাপন করে এসব বাসকে ‘স্মার্ট’ করা হয়েছে। গত অক্টোবর মাসে স্মার্ট জেলা উদ্ভাবন চ্যালেঞ্জ-২০২৩ এর আওতায় প্রথম পুরস্কার পায় এই প্রকল্পটি। প্রাথমিকভাবে সোমবার একটি বাস উদ্বোধন করা হয়েছে। জানুয়ারি মাস থেকে পুরোদমে ১০টি স্কুল বাস সড়কে চলবে।