জুনের ২৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ২২ হাজার কোটি টাকা

কোরবানির ঈদ উপলক্ষে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স পালে হাওয়া লেগেছে। চলতি জুন মাসের প্রথম ২৫ দিনে প্রবাসীরা ২০২ কোটি মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ (১ ডলার সমান ১০৮ টাকা ৫০ পয়সা ধরে) ২১ হাজার ৯১৭ কোটি টাকা।

বিজ্ঞাপন
প্রবাসীদের পাঠানো এই রেমিট্যান্স চলতি অর্থবছরে একক মাস হিসাবে তৃতীয়বারের মতো ২ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। শুধু তাই নয় জুন মাসের প্রথম ২৫ দিনে দেশে যে রেমিট্যান্স এসেছে তা পুরো মে মাসে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের চেয়ে ৩৩ কোটি ডলার বেশি। গত মে মাসে প্রবাসী আয় আসে ১৬৯ কোটি ১৬ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি জুন মাসের প্রথম ২৫ দিনে আসা রেমিট্যান্স আগের চার বছরের যেকোনো জুন মাসের চেয়ে বেশি। এর আগে ২০২২ সালের জুনে প্রবাসীরা ১৮৪ কোটি ডলার, ২০২১ সালের জুনে ১৯৪ কোটি ডলার এবং ২০২০ সালে ১৮৩ কোটি ডলার এবং ২০১৯ সালের জুনে ১৩৬ কোটি ডলার রেমিট্যান্স আসে।

এদিকে জুন মাসের ২৫ দিনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রবাসী আয় এসেছে ১৭ থেকে ২৩ জুন সময়ে। এই সাত দিনে প্রবাসী আয় আসে ৬৭ কোটি ডলার। তার আগের সপ্তাহে আসে ৫৫ কোটি ডলার। জুনের ৩ থেকে ৯ জুন এই সাত দিনে রেমিট্যান্স আসে প্রায় ৫১ কোটি ডলার।

বিজ্ঞাপন
সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, ‘ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে প্রতি বছর প্রবাসীরা দেশে বাড়তি অর্থ পাঠায়। ফলে প্রতিবছরই ঈদের আগে প্রবাসী আয় বাড়ে। যদিও গত রোজার ঈদের সময় তা খুব একটা বাড়েনি। এবার বেড়েছে তা খুবই ইতিবাচক দিক। প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স দেশের অর্থনীতিকে ধরে রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এই সময়ে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমে গেলে ডলার সংকট আরও তীব্র আকার ধারণ করতো।’

তিনি বলেন, ‘ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে জ্বালানি তেল ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির কারণে দেশে ব্যাপক মূলস্ফীতি দেখা দিয়েছে। এই অবস্থা মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ব্যাপক সংকটের মধ্যে পড়েছে। প্রবাসীদের একটা বড় অংশই হলো আমাদের নিম্নবিত্ত-মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। দেশের এই অবস্থা থেকে উত্তরণে প্রবাসীরা তাদের পরিবার-পরিজনের জন্য নিজেরা খেয়ে না খেয়ে রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন। যা দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের ভূমিকা রাখছেন।’

বিজ্ঞাপন
অর্থবছরভিত্তিক রেমিট্যান্স
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের ১১ মাস ২৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে দুই হাজার ১৪৬ কোটি ২০ লাখ ডলার। এটি তার আগের অর্থবছরের চেয়ে সামান্য বেশি।

এর আগে ২০২১-২২ অর্থবছরে প্রবাসীরা দুই হাজার ১০৩ কোটি ডলার, ২০২০-২১ অর্থবছরে দুই হাজার ৪৭৭ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠান। এছাড়াও ২০১৯-২০ অর্থবছরে এক হাজার ৮২০ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এক হাজার ৬৩১ কোটি ডলার,২০১৭-১৮ অর্থবছরে এক হাজার ৪৯৮ কোটি ডলার, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এক হাজার ২৭৬ কোটি ৯৪ লাখ ডলার, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এক হাজার ৪৯৩ কোটি ডলার এবং ২০১৪-১৫ অর্থবছরে রেমিট্যান্স এক হাজার ৫৩১ কোটি ৬৯ লাখ ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।