সোনালী ই-ওয়ালেটে প্রতিদিন ১৪ হাজারের বেশি লেনদেন

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের মধ্যে প্রথম কল সেন্টার সেবা ও কিউআর কোড চালু

সোনালী ব্যাংকের সিইও অ্যান্ড এমডি বলেন, সহজ ও স্বাচ্ছন্দ্যময় ব্যাংকিং সেবায় সোনালী ব্যাংক পিএলসি সবসময় অগ্রগামী। জনগণের দোরগোড়ায় ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দিতে সোনালী ব্যাংক প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ডিজিটাল সেবা বাস্তবায়ন করছে। এর মধ্যে সম্প্রতি চেকের বিকল্প হিসেবে কিউআর কোডনির্ভর নগদ অর্থ উত্তোলন সেবা চালু করেছে। কিউআর কোড ব্যবহার করে বর্তমানে গড়ে দৈনিক লেনদেন সংখ্যা প্রায় দেড় লাখ এবং লেনদেনের পরিমাণ প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা।

সম্প্রতি গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. আফজাল করিম।

তিনি জানান, দেশের বৃহত্তম এই ব্যাংকটিকে একটি আদর্শ ডিজিটাল ব্যাংক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ২০২০ সালের মার্চ মাসে সোনালী ই-সেবা অ্যাপ চালু করা হয়। এই অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসেই মাত্র দুই মিনিটে যে কোনো গ্রাহক হিসাব খুলতেন পারে। এছাড়া এই অ্যাপের মাধ্যমে ইনকাম ট্যাক্স, ট্রাভেল ট্যাক্স, ভ্যাট, একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির ভর্তি ফি, এইচএসসি পরীক্ষার ফরম ফিলাপের ফি, বিভিন্ন ইউটিলিটি বিল প্রদান, পাসপোর্ট ও ট্যাক্সের টাকা প্রদানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নানা রকম বার্ষিক ফি, চার্জ ও ভ্যাট পরিশোধ করা যায়।

একই বছরের ১৭ মার্চ চালু করা হয় সোনালী ই-ওয়ালেট সেবা। চলতি মাস পর্যন্ত যার হিসাব সংখ্যা ৪,৩৮,৬২৭টি। ই-ওয়ালেটের মাধ্যমে গড়ে প্রতিদিন ১৪ হাজারের বেশি ট্রানজেকশন এবং দৈনিক প্রায় ১৫ কোটি টাকার মতো লেনদেন হচ্ছে।

সোনালী ব্যাংকের এমডি বলেন, সোনালী ব্যাংকে প্রতিনিয়ত বাড়ছে ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডধারীর সংখ্যা। বর্তমানে প্রায় নয় লক্ষ গ্রাহক ব্যাংকের ডেবিট কার্ড ব্যবহার করছেন। ক্রেডিট কার্ড গ্রাহক রয়েছেন পাঁচ হাজারের মতো। সোনালী ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করে দৈনিক লেনদেনের সংখ্যা লক্ষাধিক এবং গড় লেনদেনের পরিমাণ ১০০ কোটি টাকার বেশি।