ভোলায় নতুন কূপে মিললো গ্যাস

ভোলায় নতুন কূপে গ্যাস পেলো বাপেক্স। প্রতিদিন ২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলী গ্যাস পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এই কর্মকর্তা জানান, তিন হাজার ৫২৮ মিটার গভীরে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গেছে। এখন গ্যাস কূপটিতে ৩৭০০ পিএসআই প্রেসার রয়েছে। তবে এটি আরও বাড়তে পারে।

গত ১৯ অক্টোবর ভোলায় আরও একটি কূপে গ্যাস পাওয়ার ঘোষণা দেয় জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। এর আগে প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে ভোলা নর্থে গ্যাস পাওয়ার ঘোষণা দেন। এরপর তিনটি কূপ খনন করলে তিনটিতেই গ্যাস পায় বাপেক্স।

১৯৯৬ সালে ভোলার শাহবাজপুরে প্রথম গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার করা হয়। তবে ভোলার গ্যাস জাতীয় গ্রিডে যোগ করা কঠিন বলে মনে করা হচ্ছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বাপেক্সকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিকল্পনা অনুসারে চালাতে হবে। ২০২২-২৫ সময়কালের মধ্যে পেট্রোবাংলা মোট ৪৬টি অনুসন্ধান, উন্নয়ন ও ওয়ার্কওভার কূপ খননের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। অফশোর ও অনশোরে গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলন কার্যক্রম আরও বাড়ানোর নির্দেশ দিয়ে এসময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে।

দেশীয় জ্বালানির উৎস অনুসন্ধান কার্যক্রম বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে কাতার, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ব্রুনেইসহ গ্যাস ও তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর সঙ্গে দীর্ঘ ও স্বল্পমেয়াদি চুক্তির প্রচেষ্টাও অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।