বেকারি শিল্পের উপযোগী গমের দুই জাত উদ্ভাবন

বেকারি শিল্পের উপযোগী গমের দুটি জাত উদ্ভাবন করলো এসিআই। কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় বীজ বোর্ডের ১০৮তম সভায় জাতীয় বীজ বোর্ডের সভাপতি ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব সায়েদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসিআই লিমিটেড উদ্ভাবিত দুটি নতুন গমের জাত এসিআই গম১ ও এসিআই গম২ নামে অনুমোদনের মাধ্যমে অবমুক্ত করেছেন। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এসিআই গম১ -এ উচ্চ ফলনশীল গমের সব বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। এ জাতের শীষ লম্বা আকারের হয়ে থাকে। গাছের উচ্চতা ১০০ থেকে ১০৫ সেন্টিমিটার। প্রতি গাছে টিলারের সংখ্যা ৬-৭ টি। গাছের পাতা চওড়া ও পাতার রঙ গাঢ় সবুজ। প্রতিটি শীষে দানার সংখ্যা গড়ে ৫১টি। এই জাতের দানার রঙ অম্বর, চকচকে ও আকারে বড় এবং ১০০০ পুষ্ট দানার ওজন গড়ে ৬৬ গ্রাম। প্রস্তাবিত জাতটি বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সির ফলন পরীক্ষায় ১০টি অঞ্চলে বারি গম৩৩ এর চেয়ে ১০ শতাংশের বেশি ফলন পাওয়া গেছে। এ জাতের হেক্টরে গড় ফলন ৪ দশমিক ১৯ টন। তবে উপযুক্ত পরিবেশে সঠিক ব্যবস্থাপনা করলে এ জাতটি হেক্টরে ৬ দশমিক ৩৬ টন পর্যন্ত ফলন দিতে সক্ষম।

এসিআই গম২ এ উচ্চ ফলনশীল গমের সব বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। এ জাতের শীষ লম্বা। গাছের উচ্চতা ৯৫ থেকে ১০০ সেন্টিমিটার। প্রতি গাছে টিলারের সংখ্যা ৫-৬ টি। গাছের পাতা চওড়া ও পাতার রঙ গাঢ় সবুজ। এর শীষের দৈর্ঘ্য গড়ে ১৩ দশমিক ২ সে.মি.। প্রতিটি শীষে দানার সংখ্যা গড়ে ৫৫টি। এই জাতের দানার রঙ অম্বর, চকচকে ও আকারে বড় এবং ১০০০ পুষ্ট দানার ওজন গড়ে ৬৪ গ্রাম। প্রস্তাবিত জাতটি বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সির ফলন পরীক্ষায় ১০টি অঞ্চলেই বারি গম৩৩ এর চেয়ে ১০ শতাংশের বেশি ফলন পাওয়া গেছে। এ জাতের হেক্টরে গড় ফলন ৪ দশমিক ৩০ টন। তবে উপযুক্ত পরিবেশে সঠিক ব্যবস্থাপনা করলে এ জাতটি হেক্টরে ৫ দশমিক ৪৮ টন পর্যন্ত ফলন দিতে সক্ষম।

উল্লেখ্য, বর্তমানে বাংলাদেশে গমের হেক্টর প্রতি গড় ফলন ৩ দশমিক ০৯ মেট্রিক টন হওয়া সত্ত্বেও মোট চাহিদা পূরণ করতে প্রতি বছর গড়ে ৬ দশমিক ০১ মিলিয়ন মেট্রিক টন গম আমদানি করতে হয়। যার একটি বড় অংশ বেকারি শিল্পে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এসিআই গম১ ও এসিআই গম২ জাত দুটি বেকারি শিল্পের জন্য উপযোগী হওয়ায় কৃষকরা এই দুটি জাত চাষ করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবেন এবং গম আমদানির ক্ষেত্রে বৈদেশিক নির্ভরশীলতা হ্রাস পাবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।