প্রতিবন্ধীদের জন্যও থাকছে বিশেষ সুবিধা

স্বপ্নের মেট্রোরেলের যাত্রা শুরু হতে আর মাত্র দুই দিন বাকি। আগামী ২৮ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন মেট্রোরেলের যাত্রা। প্রযুক্তিনির্ভর এই মেট্রোরেলে রয়েছে প্রতিবন্ধী ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন যাত্রীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা। হুইল চেয়ার ব্যবহারকারী ও খর্বকায় ব্যক্তিদের জন্য রয়েছে অপেক্ষাকৃত কম উচ্চতায় টিকিট বুথ। এ ছাড়া তিনতলা বিশিষ্ট মেট্রো স্টেশনে তাদের জন্য থাকবে লিফটের সুবিধা। পাশাপাশি অন্ধ যাত্রীদের মেট্রো স্টেশনে চলাচলের জন্য ব্লাইন্ড স্টিক ব্যবহারের সুবিধার্থে হলুদ রঙের ট্যাকটাইল পথের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) সূত্র জানায়।
এ বিষয়ে ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন ছিদ্দিক জনকণ্ঠকে বলেন, ‘টয়লেট, লিফট ও অগ্রাধিকার আসন সহজে বোঝার জন্য প্ল্যাটফর্ম ও মেট্রো ট্রেনে শনাক্তকারী চিহ্ন থাকবে। স্টেশন এলাকায় এবং মেট্রো ট্রেনের অভ্যন্তরে অডিও এবং ভিজুয়াল ইনফরমেশন সিস্টেম থাকবে। এই সিস্টেমের মাধ্যমে অন্যান্য যাত্রীর ন্যায় বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন যাত্রীরাও শোনা ও দেখার মাধ্যমে সহজে মেট্রো ট্রেনে যাতায়াত করতে পারবেন। যাত্রীদের দুর্ঘটনা রোধ এবং হুইল চেয়ার ও ব্লাইন্ড স্টিক ব্যবহারের সুবিধার্থে মেট্রো ট্রেনের কোচের ফ্লোর এবং স্টেশনের প্ল্যাটফর্মের উপরিভাগ একই সমতলে রাখার নিমিত্ত মেট্রো কোচের নিচে অত্যাধুনিক এয়ার ব্যাগ সাস্পেনশন সংযোজন করা হয়েছে। মেট্রো কোচের বহির্ভাগ এবং প্ল্যাটফর্মের মধ্যে সর্বত্র এমনভাবে ফাঁকা রাখা হবে যাতে যাত্রীগণ নিরাপদে ও সহজে মেট্রো ট্রেনে ওঠা-নামা করতে পারেন।’
ডিএমটিসিএলের সূত্র জানায়, এমআরটি লাইন-৬ বা বাংলাদেশের প্রথম উড়াল মেট্রোরেলে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের যাতায়াতের জন্য মেট্রো ট্রেনে এবং মেট্রো স্টেশনে আন্তর্জাতিক মানের সুযোগ-সুবিধা সংযোজিত থাকবে। হুইল চেয়ার ব্যবহারকারী ও খর্বকায় ব্যক্তিগণ যাতে টিকিট অফিস মেশিন (টিওএম) দ্বারা সহজে টিকিট সংগ্রহ করতে পারেন সে জন্য অপেক্ষাকৃত কম উচ্চতায় টিকিট বুথ থাকবে।
একইভাবে হুইল চেয়ার ব্যবহারকারী যাত্রীদের জন্য টিকিট ভেন্ডিং মেশিন (টিভিএম) ব্যবহার করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজের টিকিট সংগ্রহ করতে পারেন সে ব্যবস্থাও থাকবে। হুইল চেয়ার ব্যবহারকারী যাত্রীদের পেইড জোনে সহজে প্রবেশ এবং বাইরের জন্য হুইল চেয়ারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে স্বয়ংক্রিয় ভাড়া পরিশোধের জন্য প্রশস্ত গেট থাকবে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের লিফটে সহজে ওঠা-নামার সুবিধার্থে লিফটের অভ্যন্তরে ধরার হাতল, নিম্ন উচ্চতায় কন্ট্রোল প্যানেল ও নিজের অবস্থান বোঝার জন্য আয়না থাকবে।
লিফটের কন্ট্রোল প্যানেলে ব্রেইল পদ্ধতিতে নির্দেশনাও থাকবে। হুইল চেয়ার ব্যবহারকারী যাত্রীদের স্বাচ্ছন্দ্যে স্টেশনে ওঠা-নামার জন্য লিফটের সম্মুখে ঢালু পথ থাকবে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের জন্য কনকোর্স (যাত্রী সমাগম) এলাকায় বিশেষ সুবিধা সংবলিত ও সজ্জিত ওয়াশ রুমের ব্যবস্থা থাকবে। মূক ও বধির যাত্রীরা ডিজিটাল নির্দেশিকা অনুসরণ করে স্বাচ্ছন্দ্যে মেট্রো স্টেশনে ও মেট্রো ট্রেনে যাতায়াত করতে পারবেন। অন্ধ যাত্রীদের মেট্রো স্টেশনে চলাচলের জন্য ব্লাইন্ড স্টিক ব্যবহারের সুবিধার্থে হলুদ রঙের ট্যাকটাইল পথের ব্যবস্থা রাখা হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান।