যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রফতানি বেড়েছে ৫৩ শতাংশ

চলতি বছর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রফতানির প্রবৃদ্ধিতে চীন ও ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত দেশটিতে ৬৬৪ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করে বাংলাদেশ। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬৮ হাজার ৩২০ কোটি টাকার সমান। প্রতি ডলার ১০৩ টাকা ধরে। এটি গত বছরের এই সময়ের তুলনায় ৫৩ দশমিক ৫৪ শতাংশ বেশি।

সম্প্রতি প্রকাশিত ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব কমার্সের অফিস অব টেক্সটাইল অ্যান্ড অ্যাপারেল (অটেক্সা) জানুয়ারি-আগস্ট, ২০২২ শীর্ষক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে আসে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত আট মাসে বিশ্ব বাজার থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পোশাক আমদানি বেড়েছে ৩৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ । এরমধ্যে বাংলাদেশ থেকে আমদানি বেড়েছে ৫৩ দশমিক ৫৪ শতাংশ। একই সময়ে চীন থেকে পোশাক আমদানি ৩৭ দশমিক ১৭ শতাংশ বেড়ে ১ হাজার ৫৫৬ কোটি ডলার বেড়েছে এবং ভিয়েতনাম থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক আমদানি বেড়েছে ৩৩ দশমিক ৬২ শতাংশ। যার আর্থিক মূল্য ১ হাজার ২৮০ কোটি ডলার।

পোশাক রফতানিতে শতাংশের হিসাবে প্রবৃদ্ধি হলেও টাকার অঙ্কে অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, টাকার অঙ্কে দেশটিতে আরও বেশি পোশাক রফতানি করতে জোর দিতে হবে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে শীর্ষ দশটি পোশাক সরবরাহকারী দেশের মধ্যে ভারতের বেড়েছে ৫৬ দশমিক ৯০ শতাংশ। ইন্দোনেশিয়ার ৫৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ, কম্বোডিয়ার ৫১ দশমিক ৬৪ শতাংশ দক্ষিণ কোরিয়ার ৪২ দশমিক ৯৬ শতাংশ এবং পাকিস্তানের ৪২ দশমিক ১৬ শতাংশ বেড়েছে।

আমদানি এই পরিসংখ্যান ইঙ্গিত দেয় করোনা সংকট থেকে দ্রুতই পুনরুদ্ধার করতে পেরেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রিটেইল ইন্ডাস্ট্রি।

খাত বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত আট মাসে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পোশাক রফতানির প্রবৃদ্ধি ঘটলেও চলতি মাস থেকে তা ক্রমান্বয়ে কমতে পারে। কারণ বৈশ্বিক অর্থনীতির এই সংকটময় পরিস্থিতিতে এ মাস থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি কমে যাবে বলে পূর্বাভাস দিচ্ছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা। যার প্রভাব পড়বে বাংলাদেশের পোশাক রফতানিতে।

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সবুজ পোশাক কারখানা বাংলাদেশে অবস্থিত। দীর্ঘদিন ধরে এই শীর্ষস্থান দখল করে আছে বাংলাদেশ। সবশেষ তথ্য বলছে, মোট ১৭৩টি সবুজ কারখানার মধ্যে ৫৪টি কারখানা প্লাটিনাম রেটিং, ১০৫টি গোল্ড রেটিং ও ১০টি সিলভার রেটিং পেয়েছে। এছাড়া চারটি কারখানা কোনও রেটিং পায়নি, তবে সনদ পেয়েছে। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ইউএসজিবিসি এই কারখানাগুলোকে এই স্বীকৃতি দিয়েছে।

এছাড়া সম্প্রতি বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ এবং সবুজ পোশাক কারখানার দেশ হিসেবে মর্যাদা পেয়েছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টারের (আইটিসি) সর্বশেষ প্রকাশনায় এই স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।