ভারতের পণ্যবাহী জাহাজ ভিড়ল চট্টগ্রাম বন্দরে

বাংলাদেশের সঙ্গে ট্রানজিট চুক্তির আওতায় ভারতের পণ্য নিয়ে একটি জাহাজ চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে এসে পৌঁছেছে। মঙ্গলবার রাতে ‘এমভি ট্রান্স সামুদেরা’ নামের কার্গো জাহাজটি বন্দরের এনসিটি জেটিতে নোঙর করে। জাহাজটিতে এক কনটেইনার পণ্য (রড) রয়েছে। এ চালানটি বাংলাদেশের ভূখণ্ড হয়ে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যে (আসাম) যাবে। এই চালানটি চট্টগ্রাম বন্দর ও সড়কপথ ব্যবহার করে ভারতীয় পণ্য শ্যাওলা (সিলেট)-সুতারকান্দি (ভারত) স্থলবন্দর দিয়ে আসামে পরিবহনের দ্বিতীয় চালান।

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্রে জানা গেছে, কলকাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি সমুদ্রবন্দর থেকে ‘ট্রান্স সমুদেরা’ জাহাজটি মঙ্গলবার রাতে মোট ১২৪ একক আমদানি পণ্য বোঝাই করে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছে। এর মধ্যে মাত্র একটি কনটেইনারে টিএমটি বার আছে। এগুলো এসেছে ট্রানজিট পণ্য হিসেবে। চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ থেকে চালানটি নেমে, কনটেইনারটি সড়কপথে শ্যাওলা সিলেট হয়ে ভারতের সুতারকান্দি স্থলবন্দর হয়ে আসাম রাজ্যে পৌঁছবে। একইসঙ্গে চলতি সপ্তাহে মেঘালয় থেকে চায়ের কনটেইনার ভর্তি আরেকটি চালান ভারতের ডাউকি থেকে সিলেটের তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দর থেকে জাহাজে করে এই চালান কলকাতা পৌঁছানোর কথা। এ দুটি চালানের মাধ্যমে পাঁচটি রুট বা পথে ট্রানজিট পণ্য আনা-নেয়া শেষ হবে।

এর আগে ২০২০ সালের ২১ জুলাই ট্রান্সশিপমেন্টের প্রথম চালানটি এমভি সেঁজুতি জাহাজে করে কলকাতা বন্দর থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে ট্রানজিটের চার কনটেইনার পণ্য এসেছিল। গত মাসে মোংলা বন্দর দিয়ে ট্রানজিটের আরেকটি সফল ট্রায়াল রান সম্পন্ন হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক বলেন, বাংলাদেশ-ভারত ট্রানজিট চুক্তির আওতায় আমদানি-রপ্তানি দুই ধরনের পণ্য ওঠানামায় প্রস্তুত চট্টগ্রাম বন্দর। বন্দরে প্রতিদিন গড়ে ১০ হাজার একক আমদানি-রপ্তানি-খালি কনটেইনার ওঠানামা করছে।

ফলে ভারত থেকে আসা-যাওয়া করা ট্রানজিট-ট্রান্সশিপমেন্ট পণ্য অনায়াসেই এই বন্দরে ওঠানো-নামানো সম্ভব।

ট্রান্স সমুদেরা জাহাজের শিপিং এজেন্ট ম্যাঙ্গো লাইনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইকবাল সুজন ভূঁইয়া জানান, কলকাতা বন্দর থেকে মোট ১২৪ একক আমদানি পণ্য বোঝাই করে জাহাজটি মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম বন্দরে ভিড়েছে। এর মধ্যে একটি কনটেইনারে ট্রানজিট পণ্য আছে। বাকি কনটেইনারে পণ্যের আমদানিকারক বাংলাদেশি ব্যবসায়ী।