৮০০ কোটি টাকা বিনিয়োগে আগ্রহী ভারতীয় ব্যবসায়ীরা

ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিপুল পরিমাণে যৌথ বিনিয়োগে আগ্রহী। প্রাথমিকভাবে ভারতের রাজস্থানের ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশে বিভিন্ন খাতে যৌথভাবে ৮০০ কোটি টাকা বিনিয়োগের আগ্রহ দেখিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম।

গতকাল রবিবার বিডার কনফারেন্স কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান বলেন, গত ২৩ আগস্ট ভারতের রাজস্থানের রাজধানী জয়পুরে কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রি (সিআইআই) ও ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (আইবিসিসিআই) আয়োজনে অনুষ্ঠিত ‘ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা’ শীর্ষক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বিজনেস টু বিজনেস (বিটুবি) এই সম্মেলনে ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিপুল বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন।
সিরাজুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন কম্পানির সঙ্গে যৌথভাবে ভারতীয় কম্পানি ৯টি ইওআই সই করে। এতে প্রাথমিক অবস্থায় ভারতীয় বিনিয়োগের পরিমাণ হবে ৮০০ কোটি টাকার বেশি। যেমন—বাংলাদেশের নিটল নীলয় গ্রুপের সঙ্গে টিভিএস থ্রি হুইলার কার্গোর ৩০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ ইওআই সই হয়। এ ছাড়া বিনিয়োগকারীরা টাটা ডিজেল জেনারেটর, মাস্টার্ড অয়েল জয়েন্ট ভেঞ্চার ইন বাংলাদেশ, মার্বেল অ্যান্ড গ্রানাইট কাটিং অ্যান্ড পলিশিং জয়েন্ট ভেঞ্চার ইন বাংলাদেশ, জুয়েলারি ইন্ডাস্ট্রিজ, সিলভার, গোল্ড অ্যান্ড হ্যান্ডমেড, ট্যুরিজম বিজনেসেও বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেন। বিজয় এন্টারপ্রাইজের সঙ্গে ৫০ কোটি টাকার বিনিয়োগ চুক্তি সই হয়।

বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান বলেন, ‘বাংলাদেশে বন্ধ হওয়া পাটকলগুলোতে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছিলাম। দুটি প্রতিষ্ঠান আগ্রহ প্রকাশ করেছে এবং শিগগিরই তারা বাংলাদেশে আসবে বলে জানিয়েছে। বাংলাদেশ থেকে রাইটিং অ্যান্ড প্রিন্টিং পেপার আমদানি এবং ট্যুরিজম বিজনেস বাড়ানোর জন্যও প্রস্তাব করেছেন ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা। ’

বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে ভারত সফর করবেন। তখন কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মিটিং রয়েছে। ফলে আরো বেশি ভারতীয় বিনিয়োগ বাংলাদেশে আসবে। তিনি বলেন, ‘ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের জন্য চট্টগ্রাম ও মোংলায় দুটি অর্থনৈতিক অঞ্চল করা হয়েছে। সেখানেও বিনিয়োগ আসবে। বিনিয়োগ এলে কর্মসংস্থানও বাড়বে। ’

ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (আইবিসিসিআই) সভাপতি ও নিটল মোটরস লিমিটেডের চেয়ারম্যান আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, ‘ভারতের রাজস্থান আয়তনে বাংলাদেশের চেয়ে বড়। ওখানকার ব্যবসায়ীরা আমাদের সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগে আগ্রহী। ’ তিনি বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে প্রায় দুই বিলিয়ন ডলারের পণ্য ভারতে রপ্তানি হয়, আমরা এটাকে তিন বিলিয়নে উন্নীত করে রপ্তানিবৈষম্য কমিয়ে আনাসহ বাংলাদেশে ভারতীয় বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য কাজ করছি। ’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আইবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি শোয়েব চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এস এম আবুল কালাম আজাদসহ বিডার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

Views: 7