মালয়েশিয়ায় খুলল শ্রম বাজার, এক বছরে যাবে ২ লাখ কর্মী

জনশক্তি রপ্তানি চুক্তিতে দুর্নীতির কারণে দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার অবশেষে খুলছে।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) এক সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানবিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ এ খবর নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, এক বছরে দুই লাখ কর্মী মালয়েশিয়ায় যাবে। বেতন হবে এক হাজার ৫০০ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত। মাল‌য়ে‌শিয়ায় যাওয়ার খরচ বা অভিবাসন ব্যয় এক লাখ ৬০ হাজার টাকার কম হ‌বে।

এর আগে কীভাবে ও কোন পদ্ধতিতে কর্মী পাঠানো হবে, তা নির্ধারণে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ঢাকায় দুই দেশের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের (জেডব্লিউজি) বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ বৈঠকে কর্মী পাঠানোর খরচ পুনর্নির্ধারণের প্রস্তাব দেয় বাংলাদেশ। খাতওয়ারি কর্মীদের বেতন কত হবে, তাও নির্ধারিত হয় বৈঠকে।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর আমন্ত্রণে বুধবার মধ্যরাতে ঢাকায় আসেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম সারাভানের।

গত ১৭ জানুয়ারি ফিরতি চিঠিতে এজেন্সি সংখ্যা নির্ধারণে আইনি বিধিনিষেধের কথা জানিয়ে জেডব্লিউজি বৈঠকে নিয়োগ পদ্ধতি ঠিক করার প্রস্তাব করেছিলেন প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ। তার সাড়ে চার মাস পর বৈঠক হতে যাচ্ছে। জিটুজি প্লাসে কর্মীদের ন্যুনতম বেতন নির্ধারণ করা হয়েছিল এক হাজার ২০০ রিঙ্গিত।

সীমিত সংখ্যক রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেট, নাকি সবাই পাবে কর্মী পাঠানোর সুযোগ- এ নিয়ে ব্যবসায়িক টানাপোড়েনে ছয় মাস আগে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হলেও বাংলাদেশিদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খোলেনি।