চট্টগ্রাম থেকে স্পেনের পথে প্রথম পণ্যবাহী জাহাজ

চীন, ইতালি, ইংল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডসের পর এবার চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সরাসরি স্পেনে পণ্যবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। শুক্রবার ৭০০ টিইইউএস কনটেইনারভর্তি রফতানি পণ্য নিয়ে চট্টগ্রাম-স্পেন রুটের প্রথম জাহাজ ‘এমভি স্পিকা’ স্পেনের বার্সেলোনা বন্দরের উদ্দেশে চট্টগ্রাম ছেড়ে যায়। আগামী ২০ দিনের মধ্যে জাহাজটি সেখানে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

এর আগে, ২৫ মে জাহাজটি চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে ভিড়ে।

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্র জানায়, সুইজারল্যান্ডভিত্তিক কোম্পানি ‘কমোডিটি সাপ্লাইজ এজি’ তাদের কনটেইনারবাহী তিন জাহাজ ‘এমভি স্পেসিয়া’, ‘এমভি এন্ড্রোমিডা জে’ ও ‘এমভি মিউজিক’ দিয়ে প্রথম কার্যক্রম শুরু করবে। ১৫ দিন পর পর একটি করে জাহাজ ছেড়ে যাবে। জাহাজ তিনটি চট্টগ্রাম থেকে স্পেনের বার্সেলোনা বন্দরে সরাসরি রফতানি পণ্য পরিবহন করবে। এতে সময় লাগবে ১৯ থেকে ২০ দিন। যেখানে এখন সিঙ্গাপুর ও কলম্বোতে জটের কারণে সময় লাগছে ৩৫ থেকে ৪০ দিন।

চট্টগ্রাম-স্পেন রুটে সরাসরি জাহাজ চালুর ফলে রফতানি পণ্য ইউরোপে পাঠাতে সময় অনেকটাই কমে আসবে বলে বলছেন সংশ্লিষ্টরা। বাংলাদেশে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে স্থানীয় শিপিং এজেন্ট ‘রিলায়েন্স শিপিং অ্যান্ড লজিস্টিকস লিমিটেড’।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মোহাম্মদ ওমর ফারুক বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সরাসরি স্পেনে পণ্যবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হওয়া আমাদের জন্য একটি বড় অর্জন। পর্তুগাল, স্লোভেনিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ সরাসরি জাহাজ পরিচালনায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তারা আবেদন করলে আমরা সেটিকে অগ্রাধিকার দেবো। এতে করে আমাদের ব্যবসায়ীরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পণ্য রফতানি করতে পারবেন। এর পাশাপাশি বহির্বিশ্বের দেশগুলোতে আমাদের সুনামও বাড়বে।

বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, চট্টগ্রাম থেকে সরাসরি স্পেনে পণ্যবাহী জাহাজ চালু আমাদের জন্য সুখবর। এখন একসঙ্গে অনেকগুলো পণ্য ইউরোপে পাঠানো সম্ভব হবে। এটি আমাদের জন্য একটি বড় সুযোগ। তাছাড়া আগে ইউরোপে পণ্য পাঠাতে অনেক সময় লাগতো। এখন সে সমস্যাও দূর হবে।

গত মার্চ মাসে চট্টগ্রাম-ইতালি রুটে সরাসরি পণ্যবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়। এর ফলে ট্রান্সশিপমেন্ট বন্দর- সিঙ্গাপুর, কলম্বো, তানজুম পেলিপাস, পোর্ট কেলাং এবং চীনের বন্দর বাদ দিয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় পণ্য রফতানির সুযোগ তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি রফতানিকারকদের সময় ও অর্থের অপচয় রোধ হচ্ছে। বর্তমানে চট্টগ্রাম-ইতালি রুটে সরাসরি জাহাজ পরিচালনা করছে ইতালিভিত্তিক ফরোয়ার্ডার প্রতিষ্ঠান ‘রিফ লাইন’।