ঢাকা-চিলাহাটি শিলিগুড়ি রেলপথ এ মাসেই চালু হচ্ছে

আন্তঃদেশীয় মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল ঘিরে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্য, যাত্রী পরিষেবা এবং পর্যটন ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করতে উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। চলতি মাসেই চালু হতে যাচ্ছে ঢাকা-চিলাহাটি-শিলিগুড়ি (এনজিপি) রেলপথে আন্তঃদেশীয় মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেন। এই ট্রেনের ভারত থেকে বাংলাদেশের যাত্রীদের জন্য নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে ইমিগ্রেশন করা হবে। এ জন্য ওই স্টেশনকেই চেকপোস্ট হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

অপরদিকে বাংলাদেশের ঢাকা থেকে যে সকল যাত্রী ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি যাবেন তাদের ইমিগ্রেশন করা হবে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশনে। এছাড়া উত্তরবঙ্গের যে যাত্রীরা ওই ট্রেনে সফর করবেন তাদের ইমিগ্রেশন হবে নীলফামারীর চিলাহাটি রেলস্টেশনে। মিতালি চলাচল করবে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট ভায়া নীলফামারীর চিলাহাটি হয়ে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত। আন্তর্জাতিক রেলপথে ট্রেন চালু করার জন্য নিরাপত্তাগত ও সুরক্ষার দৃষ্টিকোণে প্রস্তুতি, কোভিডের পটভূমিতে স্বাস্থ্যগত অবকাঠামো কতটা তৈরি এবং ভারতীয় রেল ট্রেন চালানোর জন্য কতটা প্রস্তুত এসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার পরই ট্রেন চালানোর বিষয়ে উভয় দেশের দিক থেকে সবুজ সঙ্কেত দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ভারতে তিনটি শুল্ক বন্দর রয়েছে।

এগুলো হলো-কলকাতার চিৎপুর, গেদে ও হরিদাসপুর। এখন যুক্ত হল নিউ জলপাইগুড়িও। নিউ জলপাইগুড়ির রেল চেকপোস্টকে সরকারী ইমিগ্রেশন কেন্দ্র চালু হওয়ায় বৈধ ভিসা থাকলে এখান থেকে ট্রেনে বাংলাদেশে যাতায়াত করতে পারবে ভারতের পর্যটকরা। এর জন্য নতুন ইমিগ্রেশন অফিসারও নিয়োগ করা হয়েছে। অবিলম্বে এই শুল্ক বন্দর কার্যকর করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। অপরদিকে বাংলাদেশে রেলের পক্ষেও জানানো হয়েছে মিতালি এক্সপ্রেসের জন্য ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশন ও নীলফামারীর চিলাহাটি রেলস্টেশনে বৈধ ভিসার যাত্রীদের ইমিগ্রেশন করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ২৭ মার্চ ভার্চুয়ালি দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী যাত্রীবাহী মিতালি এক্সপ্রেসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। করোনার কারণে দীর্ঘ দুই বছর পর্যটন ভিসা দেয়া বন্ধ রেখেছিল ভারত। সেই কারণে উদ্বোধন হলেও মিতালি ট্রেনটি সীমান্ত পেরিয়ে ভারতের মাটিতে যেতে পারেনি। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় ট্রেনটি চালু করার সিদ্ধান্ত নেয় দুই দেশের রেল মন্ত্রণালয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে বন্ধ হয়ে থাকা যাত্রীবাহী আন্তঃদেশীয় ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেসের পর এবার চালু হচ্ছে মিতালি এক্সপ্রেসও।

যা চলতি মাসেই চালু হবে। বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি সূত্র জানায়, চলতি মাসে মিতালি গ্রীন সিগন্যাল পেয়ে যাবে এবং চলাচল শুরু করবে।