বাংলাদেশের অবস্থা শ্রীলঙ্কার মতো হবে না: বিশ্বব্যাংক

বাংলাদেশের অবস্থা শ্রীলঙ্কার মতো হবে না বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক। বুধবার (১৩ এপ্রিল) বিশ্বব্যাংকের হালনাগাদ অর্থনৈতিক পর্যালোচনা বিষয়ক একটি ভার্চুয়াল সভায় এ কথা জানান সংস্থাটির এশীয় অঞ্চলের প্রধান অর্থনীতিবিদ হ্যান্স টিমার। তবে ইউক্রেন সংকট মোকাবিলা করতে বাংলাদেশকে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে বলে জানান তিনি।

চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি ৬ দশমিক ৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে। এমন পূর্বাভাস আগেই দিয়েছিল বিশ্বব্যাংক। এবার সংস্থাটি জানাল, বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক গতিপ্রকৃতি।

বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় একটি ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এশীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক গতিবিধির হালনাগাদ তথ্য ও পূর্বাভাস তুলে ধরে সংস্থাটি। সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে সংস্থাটির এশীয় অঞ্চলের প্রধান অর্থনীতিবিদ জানান, বাংলাদেশের অবস্থা শ্রীলঙ্কার মতো হবে না।

তিনি বলেন, করোনাকালে বাংলাদেশের অর্থনীতি ভালো ছিল। দক্ষিণ এশিয়ায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে। আমি আগেই পরিষ্কার করে দিতে চাই, শ্রীলঙ্কা বর্তমানে যে পরিস্থিতিতে পড়েছে আপাতদৃষ্টিতে বাংলাদেশ সেই অবস্থানে যাবে না। তবে বাংলাদেশের আর্থিক খাতকে শক্তিশালী করতে নজর বাড়াতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তবে ইউক্রেন সংকটের কারণে রাশিয়ার ওপর ইউরোপ-আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশের লাগাতার বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে বেগ পেতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

হ্যান্স বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির সামনে আমরা দুটি চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করতে পারি। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে, তা আরও বেড়ে যেতে পারে। রাশিয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের কঠোর নিশেধাজ্ঞার মুখে পড়লে বিশ্বে জ্বালানিসহ আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে যে প্রভাব পড়বে তাতে বাংলাদেশের রফতানিখাতেও নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

এবারের জিডিপি প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলনে ২০২২ সালের জন্য দক্ষিণ এশিয়ার প্রবৃদ্ধি আগের চেয়ে ১ শতাংশ কমিয়ে ৬ দশমিক ৬ শতাংশ হবে বলে নতুন পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি।

Views: 10