ভারতের মাস্টারশেফ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন নরসিংদীর শাম্মী

ইন্ডিয়া রয়েল বেঙ্গল মাস্টারশেফ অর্গানাইজেশন এর ইন্টারন্যাশনাল রেসিপি কনটেস্টে অংশগ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন নরসিংদীর মেয়ে শেফ ফারজানা তাবাসসুম শাম্মী।
গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভারতের কলকাতায় অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় ৭টি দেশের প্রতিযোগীদের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করে ফারজানা তাবাসসুম শাম্মী বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশসহ ফ্রান্স, রাশিয়া, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, নেপাল ও ভুটানের মোট ৫০ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেন। প্রতিযোগীতায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন ফ্রান্সের ডমিনিক ফিউক্স ও তৃতীয় স্থান অর্জন করেন নেপালের রমেশ কার্কি।

বর্ণিল আয়োজনের এ প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জনকারী শাম্মীকে ‘মাস্টারশেফ ইন্ডিয়া’ হিসেবে ঘোষণা করে তাকে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে ভারতের বাইরের বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার বিখ্যাত রন্ধন শিল্পী এলেনা রোদিনা ও বাংলাদেশের শাহিদা ইয়াসমিন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইন্ডিয়া রয়েল বেঙ্গল মাস্টার শেফ অর্গানাইজেশন ইন্টারন্যাশনাল এর চেয়ারম্যান ওয়ার্ল্ড মাস্টারশেফ সিলভেস্টার রোজারিও, অর্গানাইজেশনের সভাপতি মাস্টারশেফ প্রীতম সরকার ও সাধারণ সম্পাদক সাই কুমার শর্মা।

মাস্টার শেফ সিলভেস্টার রোজারিও বিজয়ী হিসেবে বাংলাদেশের মেয়ে শাম্মীর ভূয়সী প্রশংসা করে তাকেসহ বাংলাদেশের সবাইকে অভিনন্দন জানান। সেইসঙ্গে ভবিষ্যতে বাংলাদেশেও ইন্টারন্যাশনাল মাস্টার শেফ প্রতিযোগিতা আয়োজনের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নরসিংদীর শাম্মী’স কিচেনের কর্ণধার ফারজানা তাবাসসুম শাম্মী রন্ধন শিল্পী হিসেবে ইতোমধ্যে বাংলাদেশে বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন। তিনি সম্প্রতি এশিয়ান টিভি আয়োজিত সেরা রাঁধুনি প্রতিযোগিতায়ও অংশগ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন হয়ে বাংলাদেশের সেরা রাঁধুনির শিরোপা অর্জন করেন।

শাম্মীর বাড়ি নরসিংদী জেলার মাধবদী পৌর শহরের ছোট মাধবদীতে। তিনি মাধবদী পৌরসভার সাবেক প্রশাসক ও বাংলাদেশ আওয়ামী তাঁতী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শওকত আলী ও রাশিদা বেগমের মেয়ে।

মেয়ের সাফল্যে উচ্ছসিত ইঞ্জিনিয়ার শওকত আলী বলেন, আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় মেয়ের এই সফলতায় আমরা গর্বিত। তার এই অর্জন বাংলাদেশের রন্ধন শিল্পীদের নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে। আমরা তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি।