অস্ট্রেলিয়ায় ইতিহাস গড়লেন বাংলাদেশি দুই নারী

এবারই প্রথম অস্ট্রেলিয়ায় নারী কাউন্সিলর হিসেবে দুজন বাংলাদেশি নির্বাচিত হয়েছেন। দেশটিতে বাংলাদেশিদের বসবাসের ইতিহাস প্রায় ৬০ বছরের। এ দীর্ঘ সময়ে এবারই প্রথম তারা নির্বাচিত হয়েছেন।

চার জন বাংলাদেশি নারী এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। তবে তাদের মধ্যে লেবার পার্টির সাবরিন ফারুকী এবং লিবারেল পার্টির সাজেদা আক্তার সানজিদা বিজয়ী হন। এ দুজনই প্রথম বাংলাদেশি নারী হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার কাউন্সিল নির্বাচনে অংশ নেন।

করোনা মহামারিতে বিধিনিষেধে দুবার তারিখ পরিবর্তনের পর গত ৪ ডিসেম্বর দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের ১২৪টি সিটি কাউন্সিল এলাকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এবারের নির্বাচনে রাজ্যের ৫ মিলিয়নেরও বেশি ভোটার ভোট দেন। অস্ট্রেলিয়ার নিয়ম অনুযায়ী ভোট দেওয়া প্রত্যেক নাগরিকের জন্য বাধ্যতামূলক। অনুপস্থিত ভোটারের জন্য রয়েছে ৫৫ ডলার জরিমানা।

নির্বাচন পরিচালনায় সরকারের কোভিড-১৯ নিরাপদ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বাসিন্দাদের জন্য প্রাক-নির্বাচন ভোটিং ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এ ব্যবস্থায় ভোটাররা নির্বাচনের আগেই গত ২২ নভেম্বর থেকে তাদের সুবিধা মতো যেকোনো দিন ভোট দিতে পেরেছেন।

মহামারির ঝুঁকিতে রাজ্য সরকার এ বছর অগ্রিম ভোটের জন্য নাগরিকদের উৎসাহিত করেছে। এরই অংশ হিসেবে ছিল পোস্টাল ভোটিংয়ের ব্যবস্থাও।

এবারের রাজ্য কাউন্সিল নির্বাচনে প্রায় ৩০ জন বাংলাদেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এদের মধ্যে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন ক্যাম্পবেলটাউন সিটি কাউন্সিল থেকে মাসুদ চৌধুরী এবং কাম্বারল্যান্ড থেকে সুমন সাহা। তারা দুজনই বর্তমানের বিরোধী দল লেবার পার্টি মনোনীত প্রার্থী। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রিজিওনাল কাউন্সিল ডাব্বো থেকে নির্বাচিত হয়েছেন শিবলি চৌধুরী।