দক্ষিণ সুদানের রাজধানীতে ‘বাংলাদেশ রোড’

শান্তি বজায় রাখতে এবং একই সঙ্গে নতুন আফ্রিকান এই জাতির উন্নয়ন কাজকে ত্বরান্বিত করতে বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের অবদানের কৃতজ্ঞতা হিসেবে দক্ষিণ সুদান সরকার দেশটির রাজধানী জুবায় একটি সড়কের নাম ‘বাংলাদেশ রোড’ নামকরণ করেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দক্ষিণ সুদানে মোতায়েনরত বাংলাদেশ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা প্রকৌশল দলের সহায়তায় রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা প্রকৌশল দল দক্ষিণ সুদানের জনগণ ও সরকারের কাছ থেকে তাদের জনমুখী নির্মাণ কাজের জন্য ব্যাপক প্রশংসা পেয়েছে। দক্ষিণ সুদান সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, শুক্রবার জুবায় দক্ষিণ সুদানের ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল চোল থন বালোকের সঙ্গে বৈঠককালে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে বালোক দক্ষিণ সুদানের অবকাঠামো উন্নয়নে বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের অবদানের পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবায় অবদানের প্রশংসা করেন। সুদানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এ সময় প্রশিক্ষণ, শৃঙ্খলাবদ্ধ ও দক্ষ হওয়ার জন্য বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের প্রশংসা করেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ দক্ষিণ সুদানের সঙ্গে সম্পর্ককে অত্যন্ত গুরুত্ব দেয় এবং আফ্রিকার এই জাতির সঙ্গে উন্নয়ন অংশীদারত্ব গড়ে তুলতে পছন্দ করে। তিনি পরামর্শ দেন ফার্মাসিউটিক্যালস, তৈরি পোশাক, কৃষি ও আইসিটি খাতের মতো ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা গড়ে তোলা যেতে পারে।

ড. মোমেন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দর্শন হলো উন্নয়নের পূর্বশর্ত হিসেবে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। জাতিসংঘে দক্ষিণ সুদানের সদস্যপদের জন্য বাংলাদেশের সমর্থনের কথা উল্লেখ করে তিনি সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য দুই দেশের জনগণের সাধারণ আকাক্সক্ষা অর্জনের জন্য সহযোগিতা ও অংশীদারিত্বের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করেন।

পরে সন্ধ্যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুবায় স্থানীয় বাংলাদেশিদের একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, দক্ষিণ সুদানের বাংলাদেশিরা দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।