দ্বিতীয়বারের মতো সিভিএফের নেতৃত্বে বাংলাদেশ

দ্বিতীয়বারের মতো জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর জোট ‘ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরাম-সিভিএফ এবং ‘ভালনারেবল টোয়েন্টি’ বা ভি-২০ গ্রুপের সভাপতির দায়িত্ব নিয়েছে বাংলাদেশ। আগামী ২০২০-২০২২ মেয়াদে এ দুই জোটের সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে মার্শাল আইল্যান্ড থেকে এ দায়িত্ব গ্রহণ করার কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, ‘সিভিএফ ও ভি-২০ গ্রুপের সভাপতি হিসবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর কণ্ঠস্বর হয়ে উঠবে এবং আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে তাদের স্বার্থ তুলে ধরবে।’ এর আগে ২০১১ থেকে ২০১৩ মেয়াদে এ জোটের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিল বাংলাদেশ। ৪৮টি দেশ নিয়ে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের আন্তর্জাতিক ফোরাম সিভিএফ বৈশ্বিক উষ্ণায়ন মোকাবেলায় কাজ করার পাশাপাশি জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য কাজ করে। গত মেয়াদে সিভিএফের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মার্শাল আইল্যান্ডসের প্রেসিডেন্ট হিলডা হাইন। বৈশ্বিক উষ্ণায়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর অবস্থান তুলে ধরার লক্ষ্য নিয়ে ২০০৯ সালে জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলনের আগে সিভিএফ প্রতিষ্ঠা করেছিল মালদ্বীপ। সংবাদ সম্মেলনে মার্শাল আইল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাস্টেন এন নেমরা বলেন, ‘আশা করি, ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর পক্ষে কথা বলার ক্ষেত্রে ’ভাষাহীনদের ভাষা’ হয়ে উঠবে বাংলাদেশ।’ সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ইথিওপিয়ার বন, পরিবেশ ও জলবায়ুবিষয়ক কমিশনার ফেকাদু বেয়েনে, পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।