সরকারি ত্রাণ পেয়েছে ২ কোটি ৭৭ লাখ মানুষ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৭৭ লাখ মানুষ সরকারি ত্রাণ সহায়তা পেয়েছে। গত বুধবার (২২ এপ্রিল) পর্যন্ত ৭১ হাজার ৯৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করেছে সরকার। সরকারের এক তথ্য বিবরণীতে এসব হিসাব জানানো হয়েছে।
বিবরণীতে বলা হয়, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকালে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ লাঘবের লক্ষ্যে ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বুধবার পর্যন্ত সারাদেশের মোট ৬০ লাখ ৯০ হাজার ৯০টি পরিবারের দুই কোটি ৭৭ লাখ ব্যক্তির কাছে ৭১ হাজার ৯৮ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করেছে সরকার। ৩৪ লাখ ৮৬ হাজার ৮০৯টি পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে নগদ ৩১ কোটি ২৪ লাখ ৪ হাজার ৮৮২ টাকা।
এতে বলা হয়, এ যাবত বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৯২ হাজার ৪৮০ মেট্রিক টন চাল এবং নগদ ৩৯ কোটি ৭০ লাখ ৫৪ হাজার ১৬৪ টাকা। এছাড়া শিশু খাদ্য সহায়ক হিসেবে এক কোটি ৩৯ লাখ ৭২৩টি পরিবারের বিতরণ করা হয়েছে পাঁচ কোটি ৩১ লাখ ৫২ হাজার ৪৬৫ টাকা । এ খাতে মোট বরাদ্দ ৭ কোটি ৮২ লাখ টাকা।
তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, পবিত্র রমজান উপলক্ষে বুধবার ঢাকাসহ দেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে এক লাখ ৭৬ হাজার ৪০০ জন ক্রেতার কাছে ৪০৭ দশমিক ৫৬ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল, ৪৪৩ মেট্রিক টন চিনি, ৪৬ দশমিক ১৬ মেট্রিক টন মশুর ডাল, ২২০ দশমিক পাঁচ মেট্রিক টন ছোলা এবং এক দশমিক পাঁচ মেট্রিক টন খেজুর সাশ্রয়ী মূল্যে বিক্রয় করেছে সরকার । বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ট্রেডিং করপোরেশন অফ বাংলাদেশ (টিসিবি) প্রায় তিন হাজার ডিলারের মাধ্যমে ৪৪১টি ট্রাকে এ সকল পণ্য বিক্রয় করা হচ্ছে। জনপ্রতি সর্বোচ্চ ৫ লিটার সয়াবিন তেল, ৩ কেজি চিনি, ১ কেজি মশুর ডাল, ২ কেজি ছোলা এবং ১ কেজি খেজুর বিক্রয় করা হচ্ছে।