তথ্যপ্রযুক্তিসহ চার খাতে নগদ সহায়তার সিদ্ধান্ত কার্যকর

রফতানি খাতকে উৎসাহিত করতে তথ্যপ্রযুক্তিসহ চার খাতে নতুন করে নগদ সহায়তা দেয়ার সিদ্ধান্ত অবশেষে কার্যকর হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির পাশাপাশি পাদুকা, নারিকেলের ছোবড়া ও ব্যাটারি রফতানির বিপরীতে এখন থেকে নগদ সহায়তা দেয়া হবে। ইতিমধ্যে রফতানি হওয়া যেসব পণ্যের বিপরীতে নগদ সহায়তা পেত তা আগামী ৬০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত পৃথক চারটি সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

চলতি অর্থবছর কোন খাতে কী হারে নগদ সহায়তা দেয়া হবে সে বিষয়ে গত ১৭ আগস্ট সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই সার্কুলারে আগে থেকে দেয়া ২২টি খাতের পাশাপাশি উল্লিখিত চারটি এবং ওষুধ খাতের কাঁচামালে নতুন করে নগদ সহায়তা দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। নগদ সহায়তা পাওয়ার আবেদন প্রক্রিয়াসহ সার্বিক বিষয় উল্লেখ করে গতকালের সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

সার্কুলার অনুযায়ী নতুন অন্তর্ভুক্ত চার খাতের মধ্যে সফটওয়্যার, তথ্যপ্রযুক্তি সেবা ও হার্ডওয়্যার রফতানির বিপরীতে ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা পাওয়া যাবে। সিনথেটিক ও ফেব্রিকসের মিশ্রণে তৈরি পাদুকা রফতানির বিপরীতে দেয়া হবে ১৫ শতাংশ। অ্যাকুমুলেটর ব্যাটারির বিপরীতে ১৫ শতাংশ নগদ সহায়তা পাবেন সংশ্লিষ্ট রফতানিকারকরা। আর নারিকেল ছোবড়ার আশ দিয়ে তৈরি পণ্যের বিপরীতে ২০ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা দেয়া হবে। এছাড়া ওষুধ খাতের কাঁচামাল এপিআই রফতানির বিপরীতে ২০ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা রফতানির সিদ্ধান্ত থাকলেও গতকাল এ বিষয়ে কোনো সার্কুলার জারি করা হয়নি। শিগগিরই এ বিষয়ে জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানা গেছে।