সেলিনা ইয়াসমিন কাকলী একজন সফল উদ্যোক্তা

২০০১ সালে অল্প পুঁজি নিয়ে গড়ে তোলেন বুটিক হাউজ ‘পিন্ধন’। নিজ ব্যবসা প্রসারের লক্ষ্যে বিভিন্ন সময়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন বিসিক, নাসিব, মাইডাস, পেডিলাইক প্রভৃতি প্রতিষ্ঠানে। আত্মপ্রত্যয়ী নারী কাকলীর উদ্যোগে স্বাবলম্বী হয়েছেন কিশোরগঞ্জ সদর, পাকুন্দিয়া ও হোসেনপুর উপজেলার সাত ইউনিয়নের ১৪ গ্রামের বহু দুস্থ নারী। ১৯৯৯ সালে তিনি গড়ে তুলেছেন ‘কাকলী যুব মহিলা সমবায় সমিতি’। তার প্রতিষ্ঠানে দুস্থ নারীদের নিয়মিত সেলাইয়ের উপর প্রশিক্ষণ দিয়ে যাচ্ছেন। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে জাতীয়ভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন সেলিনা ইয়াসমিন কাকলী। শিল্পখাতে বিশেষ অবদানের জন্য ‘ন্যাশনাল প্রোডাক্টিভিটি অ্যান্ড কোয়ালিটি অ্যাক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৩’ লাভ করেন। এছাড়াও ‘জাতীয় যুব পুরস্কার-২০০২’ প্রশিক্ষিত যুব সংসদ (প্রযুস) থেকেও সম্মাননা লাভ করেন কাকলী।