মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন শত শত যুবকের কর্মসংস্থান

নলছিটি উপজেলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জনপদের শত শত বেকার যুবক মোটরসাইকেল ভাড়ায় চালিয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। এ সুযোগে একশ্রেণির অপরাধীচক্র মোটরসাইকেল ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মকাণ্ডও পরিচালনা করছে।

নলছিটি উপজেলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন রুটে শত শত যুবক দিন-রাত যাত্রী পরিবাহনে ভাড়ার মোটরসাইকেল ব্যবহার করে থাকেন। এতে প্রতিদিন মোটরসাইকেল মালিকরা জমা, তেল ও মবিলের খরচ টাকা বাদ দিয়ে গড় ৫/৬শ টাকা আয় করেন। ওই টাকা দিয়ে জীবিকার তাগিদে পরিবার-পরিজন নিয়ে সংসার পরিচালনা করতে হয়। উঠতি বয়সের যুবকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন করছে। স্থানীয় দুমাউস এনজিও কর্মকর্তা মোঃ আবু হাসান বলেন, যাত্রী পরিবহনকারী ড্রাইভারদের নির্ধারিত পোশাক, মোটরসাইকেল রাখার স্থান, নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা থাকা অত্যন্ত জরুরি। তিনি আরো বলেন, ফিল্ড থেকে অফিসে আসার পথে এক পথচারী যাত্রী পরিবহনের মোটরসাইকেল মনে করে গাড়ি থামিয়ে নলছিটি শহরে আসতে চায় এবং ভাড়া কত জিজ্ঞাসা করেন। তবে চালকদের নির্ধারিত পোশাক থাকলে এমন বিড়ম্ববনায় পড়তে হতো না। তাই ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালকদের পোশাক সবচেয়ে বেশি জরুরি। এ ব্যাপারে উপজেলার বারইকরণ গ্রামের মোটরসাইকেল চালক মোঃ সোহেল (২০) জানান, এখানকার অধিকাংশ যুবক জীবিকার তাগিদে মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন। তবে সরকারি আইন-শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে মোটরসাইকেল কেউ চালায় না।

নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম সুলতান মাহমুদ বলেন, উপজেলার উঠতি বয়সের ছেলেরা মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন করে। এ বয়সে তারা নানা অপরাধে জড়ানোর সম্ভবনা থাকে। তাই মোটরসাইকেল চালকদের প্রতি বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে।