ঠাকুরগাঁওয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে মাল্টা চাষ

ঠাকুরগাঁওয়ের মাল্টা এখন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এ অবস্থায় মাল্টা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন এখানকার চাষিরা।

আর কৃষি বিভাগ বলছে, এখানকার মাটি ও আবহাওয়া মাল্টা চাষে উপযোগী বলেই চাষিদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্যমতে, হরিপুর, পীরগঞ্জ, রানীশংকৈল, বালিয়াডাঙ্গী ও সদর উপজেলার প্রায় ৬০ হেক্টর জমিতে ও প্রায় ৩ হেক্টর জমির বসতবাড়িতে মাল্টা, কমলা, বাদাম ও কলম্ব চাষ হয়েছে। এর বেশির ভাগই মাল্টা ও কমলা। কয়েক বছর ধরে এ জেলায় চাষ হচ্ছে মাল্টা। মাল্টা চাষ করে কৃষকরা অল্প সময়ে লাভবান হওয়ায় তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মাল্টা চাষে এ জেলার মাটি ও আবহাওয়া উপযোগী বলেই কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষককে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এখন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে মাল্টা চাষ। প্রতিটি গাছে কমপক্ষে ৫০টিরও বেশি মাল্টা ধরছে। আর কিছু কিছু গাছে শতাধিক মাল্টা ধরছে। এতে লাভবান হচ্ছেন কৃষক। জানা গেছে, হরিপুর উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়নের কাঁঠালডাঙ্গী গ্রামের বেলাল হোসেন মাস্টার মাল্টা চাষ করে সফল হয়েছেন। তার চাষকৃত মাল্টা এখন বাণিজ্যিকভাবে বিক্রি হচ্ছে। তিনি পেশায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি কৃষি কাজও করেন। বেলাল হোসেন জানান, ‘উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শামসুজ্জামান আমার বাড়িতে এসে মাল্টা চাষের প্রস্তাব দেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক এ কে এম মাউদুদুল ইসলাম জানান, ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড় জেলার মাটি অম্লীয় বেলে দোআঁশ। এ মাটি মাল্টা ও কমলা চাষের জন্য উপযোগী। মাল্টা চাষে কৃষকদের সব ধরনের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।