বরিশালে ইলিশ উৎসব

ডিমওয়ালা মা ইলিশ রক্ষায় ২২দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার ৮ ঘণ্টার ব্যবধানে ইলিশে সয়লাব বরিশালের পোর্ট রোড ইলিশ মোকাম। ২২ দিনের নিরবতা ভেঙ্গে মৎস্য আড়তদার, পাইকর, মৎস্যজীবী এবং ক্রেতার পদচারনায় মুখর বরিশালের ইলিশ মোকাম।

নিষেধাজ্ঞার পর প্রথম দিন গতকাল সোমবার প্রায় ৪ হাজার মন ইলিশ এসেছে বরিশালের মোকামে।
এ কারণে কমেছে দামও। ইলিশের সরবরাহ বেশী এবং দাম কম হওয়ায় খুশী ক্রেতা বিক্রেতা-সবাই। তবে প্রত্যাশার চেয়ে বেশী ইলিশ সরবরাহ হওয়ায় হঠাৎ বরফ সংকটে পড়েছে মৎস্য ব্যবসায়ীরা। আগামী কয়েকদিনে ইলিশের সরবরাহ আরো বাড়তে পারে বলে ধারনা মৎস্য বিভাগের।

নিষেধাজ্ঞা ছাড়া সারা বছরই বরিশাল নগরীর পোর্ট রোডের ইলিশ মোকামে কম-বেশী ইলিশ পাওয়া যায়। কিন্তু সোমবার একদিনে যে পরিমান ইলিশ এসেছে, তাতে অবাক সংশ্লিষ্টরা। ইলিশে সয়লাব ছিলো পোর্ট রোড মোকাম। পা ফেলার জায়গাও ছিলো না মোকামে।

প্রত্যাশার চেয়ে বেশী ইলিশ আসায় কমেছে দামও। এতে খুশী ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই। তবে বরফ সংকট অনেক ভুগিয়েছে ইলিশ ব্যবসায়ীদের।

বরিশাল মোকামে এক কেজির বড় সাইজের প্রতি মন ইলিশ পাইকরি বিক্রি হয়েছে ৬০ হাজার, কেজি সাইজের প্রতিমন ৩৮ থেকে ৪০ হাজার, রপ্তানীযোগ্য এলসি সাইজ (৬শ’ থেকে ৯শ’ গ্রাম) প্রতিমন ২০ থেকে ২২ হাজার, মাঝারী সাইজ (ভ্যালকা) প্রতিমন ১৫ থেকে ১৬ হাজার, গোটলা (৩শ’ থেকে ৪শ’ গ্রাম) ১৩ থেকে ১৪ হাজার এবং জাঁটকা প্রতিমন বিক্রি হয়েছে ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা।

সাধারন সময়ে পোর্ট রোড ইলিশ মোকামে সকাল ৯টা থেকে ১১টার মধ্যে ইলিশ বেঁচা-কেনা শেষ হয়ে যায়। কিন্তু বিকেল ৩টায়ও পোর্ট রোডে নৌকা-ট্রলার বোঝাই করে ইলিশ নিয়ে আসতে দেখা গেছে মৎস্যজীবীদের। সব ইলিশের পেটেই দেখা গেছে ডিম। এ কারনে নিষেধাজ্ঞার সময় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ।

ইলিশের সরবরাহ বেশী এবং দাম কম হওয়ায় পাইকররা বরিশাল থেকে ইলিশ পাঠাচ্ছে ঢাকা, রাজশাহী, রংপুর, ফরিদপুর সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। আবার কেউ তার নিজের আড়তে বিক্রির জন্য কিনছেন ইলিশ। সব মিলিয়ে বরিশালের পোর্ট রোড আড়তে ছিলো উৎসবের আমেজ। কেউ কেউ ‘ইলিশ উৎসব’ বলে অভিহিত করেছেন।

বরিশাল জেলা মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তা (ইলিশ) বিমল চন্দ্র দাস বলেন, ইলিশ সারা বছরই ডিম ছাড়ে। কিন্তু আশ্বিনের ভরা পূর্নিমার আগে-পরে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম। নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়ে যাওয়ায় আগামী কয়েক দিনে অভ্যন্তরীন নদ-নদীতে আরো বেশী ইলিশ ধরা পড়বে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

Views: 101