পাকিস্তানসহ বিশ্বের উচিত বাংলাদেশের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করা

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে মালালা

মিয়ানমারের নিপীড়িত রোহিঙ্গা মুসলিমদের সহায়তায় পাকিস্তানসহ বিশ্বের অন্য দেশগুলোকে বাংলাদেশের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী পাকিস্তানি কিশোরী মালালা ইউসুফজাই। একই সঙ্গে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো সহিংসতার নিন্দা জানিয়েছেন তিনি।

নিজের টুইটার পেজে দেওয়া এক বিবৃতিতে মালালা বলেন, ‘আমি যখনই খবর দেখি, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলিমদের দুরবস্থা দেখে আমার হৃদয় ভেঙে যায়। আমার নিজের দেশ পাকিস্তানসহ অন্যান্য দেশের উচিত বাংলাদেশের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করা এবং যেসব রোহিঙ্গা পরিবার সহিংসতা থেকে পালিয়ে আসছে তাদের জন্য আশ্রয় ও খাদ্যের ব্যবস্থার পাশাপাশি শিক্ষার সুযোগ করে দেওয়া। ’

বিবৃতিতে নারীশিক্ষা আন্দোলনকর্মী মালালা বলেন, ‘আজ আমি ছোট বাচ্চাদের কিছু ছবি দেখলাম, যাদের মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী হত্যা করেছে। এই বাচ্চারা তো কাউকে আক্রমণ করেনি। কিন্তু তার পরও তাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে। ’

মালালা প্রশ্ন রাখেন, ‘রোহিঙ্গারা যেখানে বংশপরম্পরায় প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে বসবাস করে আসছে, সেই মিয়ানমার যদি তাদের দেশ না হয়, তাহলে তাদের দেশ কোথায়? রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের নাগরিকত্ব দেওয়া উচিত, যে দেশে তাদের জন্ম হয়েছে। ’

রোহিঙ্গা নির্যাতনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রবিবার দেওয়া ওই বিবৃতিতে মালালা আরো বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে আমি বারবার এই মর্মান্তিক ও লজ্জাজনক আচরণের নিন্দা জানিয়ে আসছি। আমি এখনো অপেক্ষায় আছি, আমার সতীর্থ শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চি একইভাবে (রোহিঙ্গাদের প্রতি তাঁর দেশের লজ্জাজনক আচরণের) নিন্দা জানাবেন; এর জন্য পুরো বিশ্ব অপেক্ষা করছে, রোহিঙ্গা মুসলিমরা অপেক্ষা করছে। ’

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-পীড়ন ও সামপ্রদায়িক সহিংসতা চালাচ্ছে।
গত প্রায় দুই সপ্তাহে জীবন বাঁচাতে এক লাখের মতো রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে ঢুকেছে।