প্রবীণ নাগরিকদের সুবিধা নিশ্চিত করতে ২১শ কোটি টাকা বরাদ্দ

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নে বর্তমান সরকার প্রবীণ নাগরিকদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে বছরে ২১শ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে বিভিন্ন কমসূচি গ্রহণ করেছে। প্রবীণ হিতৈষী সংঘের পরিচালক ড. আতিকুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে প্রথম ক্ষমতায় এসে নারীর ক্ষমতায়ন ও প্রবীণ জনগোষ্ঠীসহ সামাজিক সুরক্ষা খাতে বিভিন্ন ভাতা চালু করে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে রোল মডেলে পরিণত করেছেন।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সেমিনারে ড. আতিকুর রহমান এসব কথা বলেন।

জাতীয় প্রেসক্লাব ও হেলপ এইজ ইন্টারন্যাশনাল যৌথভাবে প্রেসক্লাবের ভিআইপ লাউঞ্জে ‘দুর্যোগের সময় প্রবীণদের সহায়তায় জনসচেতনতা তৈরিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এ সেমিনারের আয়োজন করে।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হেলপ এইজ ইন্টারন্যাশনালের কান্ট্রি ডিরেক্টর রাবেয়া সুলতানা।

আলোচনায় অংশ নেন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ নিউজের সম্পাদক আজিজুল ইসলাম ভুঁইয়া, প্রথম আলোর যুগ্ম-সম্পাদক সোহরাব হাসান, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী, প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মাঈনুল আলম, নারী অধিকার কর্মী স্বপ্না রেজা প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত।

ড. আতিকুর রহমান বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষ প্রবীণ বা সিনিয়র সিটিজেন রয়েছেন। আগামী ২০২৫ সাল নাগাদ প্রবীণদের সংখ্যা হবে প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ। ২০৫০ সালে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি এবং ২০৬১ সালে হবে প্রায় সাড়ে ৫ কোটি প্রবীণ জনগোষ্ঠী।