দুই হাজার টাকায় কিডনির রক্তনালিতে রিং সংযোজন

বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে বুধবার দরিদ্র এক রোগীর দুই কিডনির রক্তনালিতে সফলভাবে রিং সংযোজন করেছেন চিকিৎসকরা। প্রথমবারের মতো এ রিং সংযোজন অস্ত্রোপচারে শেবাচিম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ফি বাবদ খরচ দিতে হয়েছে মাত্র ২ হাজার টাকা। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, রিং সংযোজনের পর সুস্থ আছেন পঞ্চাশোর্ধ্ব দরিদ্র মুদি দোকানি জয়নাল আবেদিন। জয়নাল বাবুগঞ্জ উপজেলার মাদবপাশা ইউনিয়নের ফুলতলা গ্রামের বাসিন্দা। হাসপাতালের ইন্টারভেশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডা. এম সালেহ উদ্দীনের নেতৃত্বে এ সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে বলে জানা গেছে।

শেবাচিম হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, জয়লান দীর্ঘদিন ধরে উচ্চমাত্রার রক্তচাপে ভুগছিলেন। এ অবস্থায় ওই রোগী শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হন। শেবাচিম হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ইন্টারভেশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডা. এম সালেহ উদ্দীন সাংবাদিকদের বলেন, ওই রোগীর রোগ সম্পর্কে ধারণা পেয়ে কিডনির এনজিওগ্রাম পরীক্ষা করে তিনি দেখতে পান তার (জয়নাল আবেদিন) ডান কিডনির রক্তনালি ৯০ শতাংশ এবং বাম কিডনির রক্তনালি ৯৫ শতাংশ ব্লক। এ অবস্থায় তিনি রোগীর দুই কিডনির রক্তনালিতে রিং বসানোর উদ্যোগ নেন। অবশেষে বুধবার জয়নালের দুই কিডনির রক্তনালিতে সফলভাবে রিং সংযোজন করেন তিনি। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, দুইটি রিং ক্রয়ের জন্য রোগীর স্বজনদের খরচ হয়েছে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা। আর হাসপাতালে ফি বাবদ জমা দিতে হয়েছে মাত্র ২ হাজার টাকা।

জয়নাল আবেদিনের স্ত্রী ফাতেমা বেগম জানান, এর আগে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে দুই কিডনির রক্তনালিতে রিং সংযোজনের জন্য চেয়েছিল ৩ লাখ টাকা। কম খরচে চিকিৎসা পেয়ে তারা ভীষণ খুশি। ডা. এম সালেহ উদ্দীন জানান, জয়নালের কিডনির রক্তনালিতে জরুরি ভিত্তিতে রিং সংযোজন করা না হলে তার কিডনি দুইটিই নষ্ট হয়ে যেত। অজ্ঞান না করে ৩০ মিনিটের মধ্যে রোগীর এ অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। রোগী বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন। শেবাচিম হাসপাতালে রিং সংযোজন টিমে ছিলেন ডা. রোহান খান, ডা. মাহফুজুর রহমান, ডা. সাইদুর রহমানসহ নার্স ও বিভিন্ন বিভাগের স্টাফ।