নাটোরে শুরু হতে যাচ্ছে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে দক্ষ মানব সম্পদ তৈরির লক্ষ্যে নাটোরের শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টারে খুব শিঘ্রই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। পরিত্যক্ত পুরাতন জেলখানা ভবন মেরামত ও আধুনিকায়নের মাধ্যমে ইতোমধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান সুবিধা তৈরি করা হয়েছে।

গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার, নাটোর স্থাপন’ শীর্ষক কর্মসূচীর আওতায় এক কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে সীমানা প্রাচীর, অভ্যন্তরীন রাস্তা, বিদ্যুৎ ও স্যানেটারী কাজ সহযোগে পুরাতন জেলখানার তিনটি ভবন মেরামত ও আধুনিকায়ন কাজ সমাপ্ত হয়েছে। এর মধ্যে দুইটি ভবন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং অপরটি ক্যান্টিন হিসাবে ব্যবহার করা হবে।

একই আঙিনায় ৫ কোটি ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ছয় তলা ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট দ্বিতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বর্তমানে পাইলিং এর কাজ চলা নতুন নির্মিতব্য এই ভবনের নির্মাণ কাজ আগামী ডিসেম্বরে শেষ হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মুহম্মদ মশিউর রহমান আকন্দ।
হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশে সাতটি শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণ কর্মসূচি বাস্তবায়ন পরিকল্পনার আওতায় প্রথম শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নাটোরে নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে জেলখানার মেরামত ও আধুনিকায়নকৃত প্রশিক্ষণ ভবনে উচ্চ মাধ্যমিক বা স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা গ্রাফিক্স ডিজাইন, কম্পিউটার হার্ডঅয়ার এন্ড নেটওয়ার্কিং ট্রাবলশ্যুটার, ওয়েব ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এবং ই-কমার্স ওয়েবসাইট ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে দেড় মাসের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রতি ব্যাচে ৩০ জন করে শিক্ষার্থী এবং প্রতিদিন দুই ব্যাচে প্রশিক্ষণ চলবে। এই কেন্দ্রে মোট ৪৮০ জন শিক্ষার্থীর প্রশিক্ষণ গ্রহণের সুযোগ থাকছে।
নতুন ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হলে আগামী জানুয়ারি মাস থেকে ফ্রিল্যান্সাররা ইনকিউবেশন সুবিধা পাবেন। এককভাবে ১৫ জন পুরুষ এবং ১৪ জন মহিলা প্লাগ এন্ড প্লে পদ্ধতিতে ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্যে ইনকিউবেশন সুবিধা পাবেন। এছাড়া প্রতি সেলে পাঁচজন করে মোট ১০ টি প্রাতিষ্ঠানিক ইনকিউবেশন সেলে দলগত ফ্রিল্যান্সিং এর সুযোগ থাকবে।

হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ার এবং শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার কর্মসূচীর উপ পরিচালক এস এম আল মামুন বাসসকে বলেন, কোর্স কারিকুলাম প্রনয়ণ জানুয়ারি, যাবতীয় উপকরন সংগ্রহসহ সকল সহায়ক কাজের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আশা করা হচ্ছে আগামী মাস থেকে প্রশিক্ষণ শুরু হবে।