২০১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সরাসরি খেলবে বাংলাদেশ

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশ। কাগজে-কলমে হিসেব অনুযায়ী ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পরবর্তী ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নিতে কোনো বাঁধা নেই বাংলাদেশের। ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা আট দল বিশ্বকাপে অংশ নিবে। বাংলাদেশ এ মুহূর্তে র‌্যাঙ্কিংয়ের সাতে অবস্থান করছে। অস্বাভাবিক কিছু না হলে র‌্যাঙ্কিংয়ের আটের নিচে নামার কোনো সম্ভাবনা নেই বাংলাদেশের।

বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি একই পরিকল্পনা বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিচ্ছে। কোয়ালিফাইং রাউন্ডে বাংলাদেশকে খেলতে হবে না, এমনটা ভেবে বাংলাদেশ থেকে কোয়ালিফাইং রাউন্ডের খেলাও সরিয়ে নিয়েছে আইসিসি। খেলা হবে স্কটল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ডে। প্রসঙ্গটা পুরোনো, তথ্যটাও। ২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সরাসরি খেলবে কি না, এ নিয়ে প্রায় দুই বছর ধরেই হিসাব-নিকাশ চলছিল। তবে এ নিয়ে সব শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। বিসিবি সভাপতির দাবি, ৩০ সেপ্টেম্বরের আগে র?্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আটেই থাকবে বাংলাদেশ।

এর মানে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ খেলতে কোনো রকম বাছাইপর্বের মধ্য দিয়ে যেতে হবে না বাংলাদেশকে। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ যে প্রায় নিশ্চিত, সেটা বোঝা গিয়েছিল চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেই। নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে র?্যাঙ্কিংয়ে ছয়ে চলে আসে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গেও পয়েন্ট ব্যবধান বাড়িয়ে ১৪ করে ফেলেন মাশরাফিরা। এরপরও যদি কোনো সন্দেহ থাকে, সেটা দূর করে দিয়েছে আফগানিস্তান। দ্বিপক্ষীয় সিরিজে প্রথম ম্যাচে হারিয়ে দেয় তারা। ফলে সরাসরি বিশ্বকাপে যাওয়ার উইন্ডিজ-স্বপ্ন বড় এক ধাক্কা খায়। এরপর ভারতের কাছে দুই ওয়ানডেতে উইন্ডিজের হার আর জিম্বাবুয়ের কাছে শ্রীলঙ্কার হার বাংলাদেশকে নিয়ে গেছে একদম নিরাপদ অবস্থানে।

এ খবরটাই গতকাল নিশ্চিত করেছেন বিসিবি সভাপতি। এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আগেও বলা হয়েছে, বাংলাদেশকে বাছাইপর্ব খেলতে হবে না। এখন পর্যন্ত যে হিসাব, কারো মনে হচ্ছে না বাংলাদেশকে সেটা খেলতে হবে। সেদিক থেকে বলতে পারি বাংলাদেশ এবার সরাসরি খেলবে। এ ব্যাপারে আইসিসি যেভাবে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে, আমরাও তাই করছি। কারণ, পয়েন্টের ব্যবধান এত বেশি যে অন্য কিছু হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না।

৩০ সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ড ও র?্যাঙ্কিংয়ের বাকি শীর্ষ সাত দল বিশ্বকাপে নিশ্চিতভাবে খেলবে। বাকি দুটি দলকে বিশ্বকাপ নিশ্চিত করতে হলে পেরোতে হলে বাছাইপর্ব। এ সময়ে বাংলাদেশের কোনো ম্যাচ না থাকলেও শ্রীলঙ্কা খেলছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। ওয়েস্ট ইন্ডিজও ভারতের পর খেলবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে, দুই দল সব ম্যাচ জিতলেও বাংলাদেশকে আটের বাইরে পাঠাতে পারবে না। ফলে বাছাইপর্ব নিয়ে ভাবনাচিন্তা এখন শ্রীলঙ্কা কিংবা ওয়েস্ট ইন্ডিজের।
এ মুহূর্তে বাংলাদেশ র‌্যাঙ্কিংয়ের সাতে রয়েছে। রেটিং পয়েন্ট ৯৪। বাংলাদেশের পরে আছে শ্রীলঙ্কা। তাদের রেটিং পয়েন্ট ৯১। ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে নয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কা টপকাতে পারলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর টপকাতে পারবে না। ফলে সরাসরি বিশ্বকাপের রাস্তা খুলে গেছে বাংলাদেশের।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যে আটটি দল র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আটে থাকবে তারা ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে। বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার রেটিং পয়েন্ট পার্থক্য ১৭। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভারতের বিপক্ষে দুই ওয়ানডে, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচটি ওয়ানডে খেলবে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। আট জয়ের আটটিতে জিতেলেও ১৭ পয়েন্ট পাবে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

Views: 32