‘মাতৃমৃত্যু রোধে বাংলাদেশ বিশ্বের রোল মডেল’

মাতৃমৃত্যু-শিশুমৃত্যু রোধ এবং জেন্ডার সমতা নিশ্চিতে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের রোল মডেল। যদিও বাল্যবিবাহ দেশের একটি বড় সমস্যা, তবে ইউনিসেফের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এই হার ১১ শতাংশ কমে এখন ৪২ শতাংশে। পারিবারিক সচেতনতা, শিক্ষার মাধ্যমে এই হার কমবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিশিষ্টজনরা। মঙ্গলবার রাজধানীর আইসিডিডিআরবির জেপিজি কনফারেন্স রুমে পাথফাইন্ডার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ আয়োজিত সাংবাদিক ও এনএইচএসডিপি জেন্ডার ওয়ার্কিং গ্রুপের মতবিনিময় সভায় এ সব কথা বলেন বক্তারা। দাতা সংস্থা ইউএসএআইডি-ডিএফআইডির অর্থায়নে বাংলাদেশে একটি শক্তিশালী, স্বনির্ভর এবং টেকসই এনজিও নেটওয়ার্ক তৈরির মাধ্যমে দরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে মানসম্মত পরিবার পরিকল্পনা, প্রজনন স্বাস্থ্য, মাতৃস্বাস্থ্য, নবজাতক ও শিশুস্বাস্থ্য এবং পুষ্টি বিষয়ক সেবা কার্যক্রমকে ত্বরান্বিত করার জন্য এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাল্টিসেক্টরাল প্রকল্প পরিচালক ড. আবুল হোসেন বলেন, ৯টি আঞ্চলিক কাউন্সিলিং সেন্টারের মাধ্যমে সারা দেশে নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের পরামর্শ দেয়া হয়। আমাদের ৬০টি হেল্পলাইন সচল রয়েছে। পাথফাইন্ডার ইন্টারন্যাশনালের সিইও এবং প্রেসিডেন্ট লুইস কোয়াম বলেন, মাতৃ ও শিশুমৃত্যু হার রোধে বাংলাদেশের অর্জন বিশ্বের স্বাস্থ্যসেবায় অন্যতম মাইল ফলক। অনুষ্ঠানে সূর্যের হাসি নেটওয়ার্কের চিফ অব পার্টি ও পাথফাইন্ডারের সিনিয়র দেশীয় প্রতিনিধি ডা. হালিদা হানুম আকতারের পরিচালনায় জেন্ডার নিয়ে কাজ করে এমন ২৫টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।