ভৈরবের পাদুকা যাচ্ছে বিদেশে

পাদুকা শিল্প ঘিরে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গড়ে উঠেছে প্রায় ৮ হাজার ছোট-বড় কারখানা। এসব কারখানায় কর্মসংস্থান হয়েছে অর্ধলক্ষাধিক মানুষের। প্রতিদিন এখান থেকে হাজার হাজার কার্টন পাদুকা রেল, সড়ক ও নৌপথে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে চালান হচ্ছে। শুধু তাই নয়, দেশের গ-ি পেরিয়ে ভৈরবে তৈরি পাদুকা ইউরোপ-মধ্যপ্রাচ্যেও রফতানি হচ্ছে।

জানা গেছে, সারা বছর কমবেশি কাজ থাকলেও ঈদ এলেই পাদুকা কারখানায় শ্রমিকদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। বর্তমানে ঈদ সামনে রেখে অন্তহীন ব্যস্ততা চলছে পাদুকা কারিগরদের। প্রায় ৮ হাজার পাদুকা কারখানায় অর্ধলক্ষাধিক শ্রমিক দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। ফলে তাদের দুই চোখে ঘুম নেই। প্রতিটি কারখানায় চলছে শিশু ও নারী-পুরুষের জন্য নানা রঙ-বেরঙের বাহারি ছোট-বড় সাইজ ও আধুনিক ডিজাইনের পাদুকা তৈরির কাজ। ডিজাইন তৈরি, সেলাই, কাটিং, সোল তৈরি, পেস্টিং, রঙ করা, সলিউশন করা, আপার তৈরির মতো বিভিন্ন রকম কাজের ভিন্ন ভিন্ন কারিগর যার যার কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এ কাজে কারিগররা ডজন হিসেবে মজুরি পেয়ে থাকেন। প্রকারভেদে প্রতি ডজনে ২০০ থেকে ৫০০ টাকা হিসেবে মজুরি পান কারিগররা। একজন কারিগর দৈনিক ১৬ থেকে ২০ ঘণ্টা কাজ করে ৫০০ থেকে ১ হাজার টাকা আয় করতে পারেন। অন্যদিকে পাদুকা তৈরির উপকরণের ৫০০ থেকে ৬০০ দোকান গড়ে উঠেছে ভৈরবে। এছাড়া রয়েছে বক্স তৈরির অন্তত শতাধিক কারখানা। এসব প্রতিষ্ঠানেও কাজ করছেন প্রায় ১৫ থেকে ২০ হাজার শ্রমিক। কারখানা মালিকরা জানান, বাজার ভালো হবে এমন আশা নিয়ে জুতা তৈরি করে স্টক করছেন তারা। গুণগত মানসম্পন্ন জুতা তৈরির ফলে বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। পাদুকা তৈরির কারিগররা জানান, সারা বছর কাজ করলেও এ সময়ের অপেক্ষায় থাকেন তারা। পুরো রমজান মাস কাজ করে বাড়তি আয়ের মাধ্যমে পরিবার-পরিজন নিয়ে ঈদে আনন্দ করেন। ক্রেতারা জানান, যাতায়াত ও পরিবহন সুবিধা ছাড়াও ভৈরবের জুতা মানে ভালো এবং দামে সুলভ। ফলে তারা এখান থেকে জুতা ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে গিয়ে পাইকারি দরে বিক্রি করেন।
এ বিষয়ে ভৈরব পাদুকা সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন বলেন, গেল বছরের তুলনায় এ বছর উৎপাদন বেড়েছে। কিন্তু লোডশেডিংয়ের কারণে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া ভৈরবের জুতা দেশের চাহিদা মিটিয়ে ইউরোপ-মধ্যপ্রাচ্যে রফতানি হচ্ছে। সরকার যদি এ শিল্পে সুনজর দেয়, তাহলে পোশাক খাতের মতো এ শিল্পও দেশের অর্থনীতে ভূমিকা রাখবে। জানতে চাইলে ভৈরব পাদুকা সমিতির সভাপতি আবদুল লতিফ বলেন, দেশে কারখানার দিকে থেকে দেশের সর্ববৃহৎ পাদুকা শিল্প এলাকা ভৈরব এবং পাইকারি বাজার হিসেবে রাজধানী ঢাকার পরই আমরা।