আরও ১০২৯ কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের উদ্যোগ

দেশে আরও ১ হাজার ২৯টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের কাজ হাতে নেয়া হচ্ছে। পুরনোগুলোর মধ্যে প্রায় ২ হাজার ক্লিনিকের সংস্কার ও নবরূপায়নের উদ্যোগ নেয়া হবে। সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের কার্যক্রম এবং কমিউনিটি ক্লিনিক মডেল উপস্থাপন সংক্রান্ত এক সভায় এ তথ্য জানানো হয়।
সভাপতির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ফসল কমিউনিটি ক্লিনিক কার্যক্রমের সাফল্য আজ সারা বিশে^ বাংলাদেশকে গর্বিত রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। বিশ^ নেতারা বাংলাদেশের যেসব অর্জনকে অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের জন্য উদাহরণ হিসেবে চিহ্নিত করছেন, সেগুলোর মধ্যে কমিউনিটি ক্লিনিক অন্যতম। তিনি বলেন, গ্রাম পর্যায় কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে। ৩২ রকমের ওষুধ তারা বিনামূল্যে পাচ্ছেন। প্রায় ১ হাজার ৫০০ ক্লিনিকে নিরাপদে সাধারণ প্রসব সম্পন্ন হচ্ছে সফলভাবে। কমিউনিটি ক্লিনিক সম্প্রসারণের পাশাপাশি এখান থেকে যেন সাধারণ মানুষ আরও বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা পেতে পারে, সেই উদ্যোগ নিতে তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। দেশব্যাপী স্বাস্থ্য অবকাঠামো স্থাপনে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি জনবলের দক্ষতা বাড়ানোর উপরও তিনি জোর দেন। স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম এ মোহী এ সময় পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনের মাধ্যমে অধিদফতরের কার্যক্রম ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং নতুন কমিউনিটি ক্লিনিকের মডেল তুলে ধরেন। স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মোঃ সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতর এবং স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।