প্রকৌশল পণ্য রফতানিতে আয় বেড়েছে ২৭ শতাংশ

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-মার্চ মেয়াদে অর্থাৎ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে প্রকৌশল সরঞ্জাম রফতানিতে আয় হয়েছে ৫৪ কোটি ২৬ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার বা ৪ হাজার ৪০৭ কোটি টাকা। যা গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এই খাতে রফতানি আয় ২৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ বেড়েছে। তবে এ সময়ের রফতানি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২৬ দশমিক ৬২ শতাংশ কম।

বাংলাদেশ রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) এপ্রিল মাসে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। এতে আরও জানানো হয়েছে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে প্রকৌশল পণ্য রফতানিতে আয় হয়েছিল ৫১ কোটি ৮০ হাজার মার্কিন ডলার। এর মধ্যে ওই বছরের প্রথম ৯ মাসে এ খাতের পণ্য রফতানিতে আয় হয়েছিল ৪২ কোটি ৫৮ লাখ মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরে প্রকৌশল পণ্য রফতানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৮ কোটি ৪৯ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে জুলাই-মার্চ মেয়াদে রফতানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৪২ কোটি ৮৫ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার।

প্রকৌশল পণ্যের মধ্যে আয়রন স্টিল রফতানিতে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে আয় হয়েছে ৪ কোটি ৬৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার; যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩১ দশমিক ০৬ শতাংশ বেশি। একই সঙ্গে গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এ খাতের আয় ৪৪ দশমিক ২৭ শতাংশ বেশি। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে আয়রন স্টিল রফতানিতে আয় হয়েছিল ৩ কোটি ২৫ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার।

চলতি অর্থবছরের জুলাই-মার্চ মেয়াদে তামার তার রফতানিতে আয় হয়েছে ২ কোটি ৫৫ লাখ ৮০ হাজার মার্কিন ডলার; যা এ সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ বেশি। একইসঙ্গে আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এ খাতের রফতানি আয় ৩০ দশমিক ২৪ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে তামার তার রফতানিতে আয় হয়েছিল ১ কোটি ৯৬ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-মার্চ মেয়াদে স্টেইনলেস স্টিল তার রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮০ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। এর বিপরীতে আয় হয়েছে ৬২ লাখ ৮০ হাজার মার্কিন ডলার; যা এ সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২২ দশমিক ০৮ শতাংশ এবং আগের অর্থবছরের এ সময়ের তুলনায় ২৪ দশমিক ৭০ শতাংশ কম। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে স্টেনলেস স্টিল তার রফতানিতে আয় হয়েছিল ৮৩ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।

প্রকৌশল সরঞ্জাম রফতানিতে চলতি অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে আয় হয়েছে ৫০ কোটি ১০ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার; যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৩১ শতাংশ বেশি।

Views: 121