নারীদের পরিচালনায় দেশে প্রথম বিশেষ ফ্লাইট

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের চেতনায় প্রথমবারের মতো নারীদের পরিচালনায় বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। দিবসটির তাৎপর্য ফুটিয়ে তুলতে বিমান এই বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে। বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মডেলের একটি উড়োজাহাজে পাইলট থেকে কেবিন ক্রু পর্যন্ত সব দায়িত্বে থাকবেন নারীরা। নারীদের এই বিশেষ ফ্লাইট চলবে ঢাকা সিলেট ঢাকা রুটে।

এভিয়েশন খাতে নারীদের আরও বেশি আগ্রহী করে তোলার পাশাপাশি বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের নারীরা যে এগিয়ে যাচ্ছে, সেই বার্তা পৌঁছে দিতে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিমানের ক্যাপ্টেন মোসাদ্দিক আহমেদ। তিনি বলেছেন- বিমানের নারী পাইলটরা সবসময় তাদের দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো এ দেশের নারীরাও এভিয়েশন খাতে সফল, এ বিষয়টি আমরা তুলে ধরতে চাই। আকাশছোঁয়ার স্বপ্ন দেখলে সেটি যে সফল হতে পারে, এর মাধ্যমে সারাদেশের নারীদের কাছে সেই বার্তাও যাবে। সরকার নারীদের ক্ষমতায়নে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে। বিমান প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই পুরুষ কর্মীদের পাশাপাশি নারীরাও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। বিমান নারীদের সুষ্ঠু ও সুন্দর কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করে।

বিমান জানিয়েছে, আজ বেলা ১১টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা থেকে সিলেটগামী বিজি ৬০৩ ফ্লাইটে থাকবেন সব নারী ক্রু। উড়োজাহাজ চালাবেন ক্যাপ্টেন তানিয়া রেজা এবং ফার্স্ট অফিসার অন্তরা। এছাড়া দু’জন ককপিট ক্রু ও ৬ জন কেবিন ক্রুর দায়িত্বেও থাকছেন নারীরা।

এ ধরনের নারী নির্ভর ফ্লাইট কতটা চ্যালেঞ্জের জানতে চাইলে তানিয়া রেজা বলেন, আকাশে উড়াটাই তো প্রতি মুহূর্তের জন্য একটা চ্যালেঞ্জিং কাজ। তার ওপর যদি হয় সব কজন নারী ক্রু সেটা অবশ্যই আরও চ্যালেঞ্জের। আমি চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। ভয়ভীতির মানসিকতা থাকলে আকাশে উড়ব কেন- অফিসে বসে থাকার চাকরি করলেই তো পারতাম।

ক্যাপ্টেন তানিয়া রেজা বিমানে যোগ দিয়েছেন ২০০০ সালে। তিনি এর আগে এফ-২৮, ডিসি-১০, এয়ারবাস-৩১০, বোয়িং-৭৭৭ উড়োজাহাজ চালিয়েছেন। এখন পর্যন্ত ৬ হাজার ঘণ্টা উড়োজাহাজ চালানোর অভিজ্ঞতা আছে তার। বর্তমানে তিনি বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজের ক্যাপ্টেন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

কিভাবে এলেন এ পেশায় জানতে চাইলে বলেছেন তিনি পাইলট মামাদের দেখে আকাশে ওড়ার স্বপ্ন দেখতাম। নারীদের এগিয়ে যেতে আগে নিজের ইচ্ছা প্রয়োজন। একইসঙ্গে পরিবারের সহায়তা থাকলে পথচলা মসৃণ হয়। যদিও দেশের এভিয়েশন খাতে নারীরা বাধার সম্মুখীন হয়নি। তারা অনেক আগে থেকেই দক্ষতার সঙ্গে এই খাতে অবদান রাখছেন।

বিমানে ১৪০ জন পাইলট আছেন। এর মধ্যে নারী পাইলট ৯ জন। এছাড়া বিমানের গ্রাউন্ড সার্ভিস, প্রকৌশলসহ বিভিন্ন বিভাগে নারীরা দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন। তারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন, এই বার্তা তুলে ধরতেই বিমানের এই প্রচেষ্টা।

উল্লেখ্য, প্রতিবেশী ভারতেও আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে সামনে রেখে শুধু নারী ক্রু নিয়ে প্রথমবারের মতো একটি বিশেষ ফ্লাইট চালিয়েছে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ। এয়ার ইন্ডিয়ার সান ফ্রানসিস্কোগামী এই ফ্লাইটের সব ক্রুই ছিলেন নারী। যা বিশ্বে প্রথম বলে দাবি ভারতীয় বিমান পরিবহন কোম্পানিটির। সোমবার বোয়িং-৭৭৭ উড়োজাহাজটি রাজধানী দিল্লী থেকে সান ফ্রানসিস্কোর পথে রওনা হয়। বিষয়টি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা হবে বলেও জানান তারা। ক্রুরা ছাড়াও চেক-ইন এবং গ্রাউন্ড হ্যান্ডেলিং স্টাফ, উড়োজাহাজটি উড্ডয়নের ছাড়পত্র দেয়া প্রকৌশলী এবং এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলাররাও নারী ছিলেন। আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে একই রকম আরও একটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে এয়ারলাইন্সটির ওয়েবসাইটে।