মুস্তাফিজের জয়জয়কার

অনুষ্ঠানের শেষ আকর্ষণ ছিল ‘পিপলস চয়েজ অ্যাওয়ার্ড’। দেশের ক্রীড়াঙ্গনে গত দু’বছরে কে সেরা, সেটা অনলাইনে ভোট দিয়ে নির্বাচন করেছেন ক্রীড়াপ্রেমীরা। ফলাফলের খামটি খুলেই প্রধান অতিথি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত স্বভাবসুলভ হাসি দিয়ে মুস্তাফিজুর রহমানের নাম ঘোষণা করতেই স্থানীয় একটি হোটেলের বল রুম করতালিতে ফেটে পড়ে। কাটার মাস্টারের এটি ছিল দ্বিতীয় পুরস্কার। কিছুক্ষণ আগেই ২০১৫ সালের বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কারও প্রধান অতিথির হাত থেকে নিয়েছেন মুস্তাফিজ। তারকা এ পেসার দুটি আকর্ষণীয় পুরস্কার পেয়ে বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতির (বিএসপিএ) মঞ্চ আলোকিত করে রাখেন। তিনি ছাড়া আর কেউ দুটি পুরস্কার পাননি।

মুস্তাফিজের সঙ্গে কেউ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে না পারলেও ২০১৬ সালের বর্ষসেরা পুরস্কার নিয়ে বেশ নাটকীয় পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। বিজয়ীর নাম ঘোষণার আগে মনোনীত তিনজন- ক্রিকেটার তামিম ইকবাল, সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শীলা ও হকি খেলোয়াড় আশরাফুল ইসলামকে মঞ্চে ডেকে নিয়েছিলেন সঞ্চালক। ভারতে অনুষ্ঠিত ২০১৬ এসএ গেমসে সাঁতারে বাংলাদেশকে দুটি স্বর্ণ পদক এনে দেওয়া মাহফুজা খাতুন শীলার নাম অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করে নাটকীয়তার অবসান ঘটান। শীলার কাছে হেরেও খুশি ছিলেন তামিম ইকবাল, ‘আমি আসলে হারতেই চেয়েছিলাম। কারণ সব পুরস্কারের বেলায় দেখা যায় কেবল ক্রিকেটারদের প্রাধান্য দেওয়া হয়। অন্যদেরও পুরস্কার পাওয়া উচিত। আর তিনি (শীলা) দেশকে এত বড় টুর্নামেন্টে দুটি স্বর্ণ এনে দিয়েছেন। এ পুরস্কার তারই প্রাপ্য।’ আর শীলা জানিয়েছেন, যার হাত থেকে তিনি ২০১৬ সালের বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কার নিয়েছেন, তার অনুপ্রেরণাতেই নাকি ভারতে দুটি স্বর্ণ জিতেছিলেন। এর পেছনের ইতিহাসটাও শুনিয়েছেন শীলা, ‘২০১০ সালে ঢাকায় এসএ গেমসে আমি অল্পের জন্য দ্বিতীয় হয়েছিলাম। তখন আমার হাতে রৌপ্য পুরস্কারটি তুলে দেওয়ার সময় স্যার (অর্থমন্ত্রী) বলেছিলেন, তোমার উচ্চতা কম তো তাই তুমি পেরে ওঠনি। প্রথম হতে হলে তোমাকে আরও অনেক পরিশ্রম করতে হবে। কথাটি আমি মনে রেখেছিলাম। এরপর কঠোর পরিশ্রম করে ভারত থেকে গত বছর দুটি স্বর্ণ পদক জিতেছি।’

তামিম ইকবাল কিছুক্ষণ আগে একটি পুরস্কার পাওয়াতেই হয়তো বর্ষসেরা হতে না পারায় কোনো আক্ষেপ করেননি। ২০১৬ সালের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার পেয়েছেন তামিম। ২০১৫ সালের সেরা ক্রিকেটার হয়েছেন বিশ্বকাপে দুটি সেঞ্চুরি করা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। জাতীয় দলের নতুন তারকা মেহেদি হাসান মিরাজ ২০১৬ সালের সেরা উদীয়মানের পুরস্কার পেয়েছেন। এ ছাড়া আরও পুরস্কার পেয়েছেন ফুটবলার কৃষ্ণা রানী সরকার, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত, হকি খেলোয়াড় আশরাফুল ইসলাম, শুটার শাকিল আহমেদ, দাবাড়ূ ফাহাদ রহমান, ফুটবলার সারোয়ার জামান নীপু প্রমুখ।