খুদে বিজ্ঞানীদের তাক লাগানো উদ্ভাবন

গ্রন্থসুহূদ বিজ্ঞান ক্লাবের উদ্যোগে গতকাল বাড্ডা থানার বেরাইদে প্রথম ‘বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা অনুষ্ঠিত হয়। একেএম রহমতউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ক্যাম্পাসে আয়োজিত মেলায় সভাপতিত্ব করেন ক্লাব সভাপতি ও বিজ্ঞান সংগঠক এমদাদ হোসেন ভুঁইয়া। প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা-সভাপতি একেএম রহমতউল্লাহ এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায়, বেরাইদ ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, বেরাইদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আইয়ুব আনসার মিন্টু। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, একেএম রহমতউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের নবনিযুক্ত অধ্যক্ষ ফরিদ আহমেদ, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান ভুঁইয়া, বেরাইদ মুসলিম হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মির্জা লুত্ফর রহমান, রওশনআরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান, বেরাইদ মোহাম্মদীয়া দাখিল মাদরাসার সুপারিনটেনডেন্ট সাইদুর রহমান, আলহাজ রহিমউল্লাহ দাখিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার মাহবুবুর রহমান, শাহীন মোল্লা প্রমুখ।

একেএম রহমতউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শিক্ষার্থীদের উদ্ভাবিত ৩১টি প্রকল্প হলো:হোম মেইড জেনারেটর, ঘরে বসে ডায়াবেটিস শনাক্তকরণ, কচুরিপানা থেকে হারবাল শ্যাম্পু তৈরি, সহজলভ্য পদ্ধতিতে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার তৈরি, রাসায়নিক ভেলকি, কাপড় কাঁচার সোডা থেকে খাদ্য লবণ প্রস্তুতি, অদৃশ্য কালি তৈরির কৌশল, প্রকৃতি থেকে ক্ষতিকরমুক্ত কীটনাশক তৈরি, লঞ্চ ওভারলোডের সলিউশন, খেজুরের রস থেকে প্রিজারভেটিভস তৈরি, রঙিন ফুলকে বিরঞ্জিত করা, হাউস কয়েল, সাবানে ক্ষারের পরিমাণ নির্ণয়, খাবার পানিতে ইলেকট্রোলাইডস-এর উপস্থিতি নির্ণয়, কোল্ড ক্রীম প্রস্তুতি ও ডায়নামিক জেনারেটর। বেরাইদ মুসলিম হাই স্কুল শিক্ষার্থীদের প্রদর্শিত চারটি প্রকল্প হলো—গ্রিন সিটি মডেল, মোটরবাইক, মিশ্র রং প্রস্তুতি, ওয়াটার হিটার, ভ্যাকুয়াম ক্লিনার, মাটি কাটার যন্ত্র ও বায়োগ্যাস প্লান্ট। রওশনআরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রীদের প্রকল্পগুলো হচ্ছে রি-সাইকেল, পানি পরিষ্কার করার কৌশল, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও হলোগ্রাম থ্রি ডি অ্যাপ্লিকেশন। বেরাইদ মোহাম্মদীয়া দাখিল মাদরাসার প্রকল্পগুলো হচ্ছে- স্বল্প খরচে সাবান তৈরি, আলোর ফাঁদে কীট দমন, ঘূর্ণায়মান উজ্জ্বল ডিম তৈরি ও ওয়াটার ক্যান্ডেল তৈরি।