মুনাফা ও সম্পদ বেশি দেখাচ্ছে সোনালি আঁশ

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সোনালি আঁশ কর্তৃৃপক্ষ মুনাফা ও সম্পদ বেশি দেখিয়ে আসছে। পুনর্মূল্যায়নে বৃদ্ধি পাওয়া স্থায়ী সম্পদের উপর অবচয় চার্জ না করে কোম্পানি এ মুনাফা ও সম্পদ বেশি দেখিয়ে আসছে বলে নিরীক্ষক কোয়ালিফাইড ওপিনিয়ন (আপত্তিকর মন্তব্য) করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বাংলাদেশ অ্যাকাউন্টিং স্ট্যান্ডার্ড (বিএএস)-১৬ অনুযায়ী, স্থায়ী সম্পদের উপরে অবচয় চার্জ করতে হয়।

ফলে মুনাফা ও সম্পদ কমে আসে। কিন্তু সোনালি আঁশে ২০০৬-০৭ অর্থবছরে পুনর্মূল্যায়নে স্থায়ী সম্পদ বাড়লে তার উপরে অবচয় চার্জ করা হচ্ছে না। যাতে ওই সময় থেকেই মুনাফা ও সম্পদ বেশি দেখানো হচ্ছে।

এদিকে কোম্পানি কর্তৃৃপক্ষ ২০০৬ সালের শ্রম আইন মানছে না বলে নিরীক্ষক আপত্তিকর মন্তব্য করেছে। কোম্পানিটিতে ২০০৫-০৬ অর্থবছর থেকে ২০১৪-১৫ অর্থবছর পর্যন্ত সময়ে ৪৭ লাখ ৩৩ হাজার টাকার ফান্ড গঠন করা হয়েছে। কিন্তু আইন অনুযায়ী, দুই-তৃতীয়াংশ বিতরণ করা বাধ্যতামূলক হলেও তা করা হয়নি। এদিকে কোম্পানিটিতে ৫ কোটি ৬০ লাখ টাকার অস্পর্শনীয় সম্পদ ও অনুপার্জিত মুনাফা বেড়েছে বলে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের আর্থিক হিসাবের নোট-৫-এ উল্লেখ করা হয়েছে। এতে কোম্পানির পুঞ্জীভূত মুনাফা বেশি করে দেখানো হয়েছে বলে নিরীক্ষক আপত্তিকর মন্তব্য করেছে। ১৯৮৫ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সোনালি আঁশে ২ কোটি ৭১ লাখ টাকার পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। উল্লেখ্য, ২০ ডিসেম্বর শেষে কোম্পানির শেয়ার দর দাঁড়িয়েছে ১৮২.৭০ টাকায়।