বিলুপ্ত ছিটমহলে প্রথম ভোট উৎসবে পরিণত

গতকাল অনুষ্ঠিত হয় দেশের চারশ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। বিভিন্ন স্থান থেকে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী ও ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে সকাল ৮টা থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রগুলোতে ছিল ভোটারদের উপচেপড়া ভিড়। দেশের বৃহৎ বিলুপ্ত ছিটমহল দাশিয়ারছড়ার শেখ ফজিলাতুনেছা দাখিল মাদ্রাসায় জীবনের প্রথম ভোটটি প্রয়োগ করেন সহিজন বেগম (৮৩)। তিনি ওই এলাকার বাসিন্দা। তিনি উচ্ছ্বসিত হয়ে বলেন, ‘খুব আনন্দ নিয়া জীবনের প্রথম ভোটটি দিলাম। একটু ভয় ভয় করছিল, ঠিকঠাকমতো ভোট দিতে পারব কিনা। ব্যালট পেপার বাঙ্ েঢোকানোর পর খুব ভালো লাগছে। এই আনন্দ বলি বোঝানোর মতো নয়।’ শারীরিক প্রতিবন্ধী সমন্বয়টারী গ্রামের মকবুল হোসেন (৬১) ভোট দিতে এসে জানান, ‘নিজের এলাকায় ভোট সেন্টার হওয়ায় আমাগো মতো মানুষগুলার খুব ভালো হইছে। ভোট কী, ভোটের আনন্দ কি আগে বুঝবার পাই নাই। এখন পুরো গ্রামের মানুষের সঙ্গে ভোট দিতে এসে খুবই আরাম বোধ করছি।’ এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার রায়হান উদ্দিন সরদার জানান, আমি গর্বিত। প্রথম প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীর ভোট নিচ্ছি। ছিটমহলের বাসিন্দা হাবিবুর রহমান নূর ইসলাম জানায়, জীবনে এর চেয়ে আনন্দ আর কিছু নাই। ছিটের মানুষ ৬৮ বছর নাগরিকত্বের স্বাদ পায়নি। ভোট দিতে পারেনি। প্রথমবার ভোট দিতে পেরে আনন্দে ভাসছে গোটা দাশিয়ারছড়াবাসী। ঘরে ঘরে চলছে ঈদের মতো উৎসব। জেলা নির্বাচন অফিসার দেলোয়ার হোসেন জানান, ফুলবাড়ী উপজেলায় ফুলবাড়ি সদর, কাশিপুর ও ভাঙ্গামোড় ইউনিয়ন এবং ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ভুরুঙ্গামারী সদর, পাথরডুবী ও শিলখুড়ি ইউনিয়নে জেলার বিলুপ্ত ১২টি ছিটমহলের ২ হাজার ৯১৫জন ভোটারকে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। এ ৬টি ইউনিয়নে ৮৪টি কেন্দ্রে এবং ৪৩১টি বুথে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৪৪৯ জন ভোটাধিকারের সুযোগ পান। নির্বাচনে ৩১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৩৪৩ জন সদস্যপদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।সকালে দাশিয়ারছড়ায় পরিদর্শনকালে কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তবারক উল্লাহ জানান, নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য তিন স্তরের নিরাপত্তা দিয়ে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব ও আনছার মোতায়েন করা হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি।লালমনিরহাট : প্রায় ৬ যুগ পর ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে বাংলাদেশি নাগরিকত্বেরপূর্ণ স্বীকৃতি পেল বিলুপ্ত ছিটমহলের বাসিন্দারা। নাগরিকত্ব লাভের পর নতুন বাংলাদেশিদের বাকি ছিল এই ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ। সোমবার জেলার তিন উপজেলার ছিটমহলভুক্ত ৮টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়নগুলো হলো, লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট, হাতীবান্ধা উপজেলার গোতামারী, পাটগ্রামের বুড়িমারী, শ্রীরামপুর, জগতবেড়, কুচলীবাড়ি, জোংড়া ও পাটগ্রাম। বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখো গেছে, ভোটের কারণে বিলুপ্ত ছিটমহলগুলোতে আনন্দে ভেসেছিল বাংলাদেশের নতুন এই নাগরিকরা। এ যেন ঈদ ও দুর্গাপূজার আনন্দ। যোগ্য প্রার্থী বিকল্প নাই, নতুন বাংলাদেশিদের উন্নয়ন চাই’ সবার মুখে এ ধ্বনিতে এমন সেস্নগান এ লালমনিরহাট জেলার সাবেক ৫৯টি ছিটমহলের নতুন বাংলাদেশিদের। শিশুরা পোস্টার হাতে রাস্তায় হৈ-হুলোড় করেছে। বছরের পর বছর তারা ভোট দেখেছেন কিন্তু দিতে পারেননি। এবার তাদের সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে। সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের বাসিন্দা (সাবেক ছিটমহল ভিতরকুঠি গ্রামের) আলী আহম্মেদ (৬৫) জানান, এবার আমরা বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে মূল্যবান ভোট দিতে পেরেছি। ফলে জীবনের শেষ সময়ে হলেও এ সুযোগ পেয়ে আমি আনন্দিত। একই এলাকার ইয়াকুব আলী(৬০) জানান,ছোট থেকে বৃদ্ধ হয়েছি ঠিকই কিন্তু কোনোদিন ভোট দিতে পারিনি। এবার ভোট দিতে পেরেছি বলে আমরা অনেক খুশি। লালমনিরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন করা হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। অন্যদিকে, লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক জানান, ভালো ভাবেই নিবাচর্ন অনুষ্ঠিত হয়েছে।লালমনিরহাটে আওয়ামী লীগের ৬ জন, বিএনপির ১ জন ও স্বতন্ত্র ১ জন চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছে। জেলা নির্বাচন অফিসের তথ্য মতে, নির্বাচিতরা হলেন_ লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নে মো. ইন্দ্রিস আলী (বিএনপি), হাতীবান্ধা উপজেলার গোতামারী ইউনিয়নে মো. আবুল কাসেম সাবু মিয়া (আওয়ামী লীগ), পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নে মো. আবু সাহিদ নেওয়াজ নিশাদ (স্বতন্ত্র), শ্রীরামপুর ইউনিয়নে মো. আবুল হাসেম (আওয়ামী লীগ), জগতবেড় ইউনিয়নের মো. নবিবর রহমান (আওয়ামী লীগ), কুচলীবাড়ি ইউনিয়নের মো. হামিদুল হক (আওয়ামী লীগ), জোংড়া ইউনিয়নের মো. আশরাফ আলী (আওয়ামী লীগ) ও পাটগ্রাম ইউনিয়নের মো. আবদুল ওহাব প্রধান (আওয়ামী লীগ) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। লালমনিরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম এ ফলাফলের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।পঞ্চগড় : দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনা শেষে ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই দেশের অভ্যন্তরে থাকা ছিমহলগুলো বাংলাদেশে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পর এবারেই প্রথম ভোটাধীকার প্রয়োগ করছেন বিলুপ্ত ছিটমহলের প্রাপ্ত বয়স্ক নারী-পুরুষরা।বিলুপ্ত ছিটমহলযুক্ত পঞ্চগড়ের ৩ টি উপজেলার (পঞ্চগড় সদর, বোদা ও দেবীগঞ্জ) ৮ টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণ উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলে। নতুন বাংলাদেশিরা পুরাতন বাংলাদেশিদের সাথে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট প্রদান করছেন।সাতক্ষীরা : নিরপেক্ষ ভোটের পরিবেশ না থাকার অভিযোগ এনে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী স ম গোলাম মোরশেদ ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।এদিকে টাকা দিয়ে ভোট কেনার অভিযোগে দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মিজানুর রহমান মিন্নুরসহ তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব।সোমবার বেলা ১১টা ২০ মিনিটে কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা বালিয়ানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার তাপস কুমার দাস ও সংবাদ কর্মীদের সামনে সুষ্ঠু ভোটের পরিবেশ না থাকার অভিযোগে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী স ম গোলাম মোরশেদ ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরার পাঁচটি ইউনিয়নে পুনঃনির্বাচনে আওয়ামী লীগের তিনজন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী একজন ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছে।সোমবার গতকাল সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট শেষে সন্ধ্যা ৭টায় এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।নির্বাচিতদের মধ্যে তালা উপজেলার কুমিরা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজিজুর রহমান, কলারোয়া উপজেলার কুশোডাঙ্গা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আসলামুল হক ও কেরালকাতা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল হামিদ, দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম ও শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ আব্দুর রহিম বিজয়ী হয়েছেন।এছাড়া সদর উপজেলার কুশখালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনে রুহুল আমিন ও দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনে আসাদুল ইসলাম ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কামরুল হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।চৌগাছা (যশোর) : যশোরের চৌগাছা উপজেলার পাশাপোল ইউপির চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে অবাইদুল ইসলাম সবুজ (নৌকা) বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ও নিহত চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের পুত্র শাহীন রেজা (আনারস)।এর আগে ভোট গ্রহণের সময় রাণীয়ালী কেন্দ্রে উভয়পক্ষের সমর্থকদের সংঘর্ষে চার ব্যাক্তি ছুরিকাহত হয়। তারা হলেন নরহরি, অনুকুল চন্দ্র, বিধান কুমার ও সাধন। এরা সবাই বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থক বলে জানা গেছে।চাঁদপুর : চাঁদপুরে স্থগিত থাকা ১৫টি ইউনিয়নের ৩৬টি কেন্দ্রে চলছে ভোটগ্রহণ। এর মধ্যে ৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে।জামালপুর : আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে কেন্দ্র দখল ও ভোট কারচুপির অভিযোগে সোমবার দুপুরে মাদারগঞ্জ উপজেলার তিনটি ইউপি নির্বাচন বর্জন করেছে বিএনপির তিন প্রার্থী। মাদারগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফাইজুল ইসলাম লাঞ্জু জানান, সোমবার সকাল থেকে মাদারগঞ্জ উপজেলার চরপাকেরদহ, জোড়খালি ও বালিজুড়ি ইউনিয়ন তিনটির সবকটি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। এ নির্বাচন প্রক্রিয়ার শুরু থেকেই আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা বিএনপি প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের নানা হুমকি ধমকি প্রদান করেছে। এছাড়াও নির্বাচনের দিন আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা বিএনপির ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী ও সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যেতে বাঁধা দেয় এবং চেয়ারম্যান প্রার্থীর ব্যালটে জোরপূর্বক নৌকা প্রতিকের সিল মারে। এতে সুষ্ঠু নির্বাচনের কোন পরিবেশ না থাকায় মাদারগঞ্জের চরপাকেরদহ ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী মোঃ আলমগীর কবির, জোড়খালি ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী জগলুল পাশা ছোটন ও বালিজুড়ি ইউনিয়নে বিএনপি প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম মুসা সোমবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।মাদারীপুর : স্থগিত হওয়া মাদারীপুরের দুইটি ইউপির ভোট চলাকালে দুপুর দুইটার দিকে ঘটমাঝি ইউনিয়নে কুন্তিপাড়া গ্রামে আওয়ামীলীগ সমর্থকদের ৪ টি বাড়িতে ভাংচুর অগি্নসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হলেও নির্বাচন কেন্দ্রের বাইরে কয়েকটি স্থানে উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে কেন্দ্রগুলোতে কঠোর নিরাপত্তায় সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন চলছে।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দুপুরের দিকে নৌকা সমর্থিত সমর্থক সাবেক ইউপি সদস্য সোহরাব খান, কালাম খানের বাড়িসহ আওয়ামী লীগ সমর্থক ৪টি বাড়িতে হামলা চালায় বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা। এ সময় হামলাকারীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাড়ি ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর করে। তারা বাড়ি ঘরে অগি্নসংযোগ ঘটায় ও ২টি গরুসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে।আখাউড়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গতকাল সোমবার শান্তিপূর্ণভাবে চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে দু’টি ইউনিয়নেই ভোটার উপস্থিতি খুব একটা ছিল না। এ অবস্থার মধ্যেও ভোট বর্জন করেন বিএনপি মনোনীত দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী।দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. শাহনেওয়াজ খান বেলা সাড়ে ১০টার দিকে তাঁর বাড়িতে কয়েকজন সাংবাদিককে ডেকে নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোট বর্জনের ঘোষনা দেন। বেলা ১২টার দিকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন মনিয়ন্দ ইউনিয়ন পরিষদে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. রবিউল্লাহ ভূঁইয়া। গত নির্বাচনেও ওই দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছিল।লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চর লরেন্স ও চর মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের ৬ চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে প্রার্থীরা ভোট বর্জন করেন। তারা হলেন চর লরেন্স ইউনিয়নের বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন খোকন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোসলেহ উদ্দিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মাস্টার আবুল কাসেম হওলাদার, চর মার্টিন ইউনিয়নের বিএনপির প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মুফতি মুসলিম উদ্দিন নূরী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম।