বাংলাদেশের অগ্রগতির ইতিকথা

সকল ক্ষেত্রেই বাংলাদেশের অর্জন ঈর্ষণীয়। সরকারের সার্বিক সহযোগিতা, পরিকল্পনা এবং দেশের সর্বস্তরের মানুষের উদ্যোগ ও কর্মপ্রচেষ্টায় বাংলাদেশ আমূল পরিবর্তনের দিকে অগ্রসরমান। তার দৃশ্যরূপ ধরা পড়ে সমগ্র দেশের অবকাঠামোগত রূপান্তরের মধ্যে। এর বিকশিত রূপটি পরিস্ফুটিত হতে সময়ের প্রয়োজন আশা করা যায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই বাংলাদেশ লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হবে। পরিবর্তনের বেগ যেসব ক্ষেত্রে মোটাদাগে নজর কাড়ে সেগুলো হলো অবকাঠামোগত উন্নয়ন, বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ, শিক্ষার মানোন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন প্রভৃতি। জলবায়ুর পরিবর্তন ও পরিবেশ রক্ষায় বাংলাদেশ তো পৃথিবীর শীর্ষস্থানীয় দেশগুলোর জন্যও অনুকরণীয়। দেশের উন্নয়নে সর্বদা নতুন পদক্ষেপ ও উদ্যোগ গৃহীত হচ্ছে। উদ্ভাবন হচ্ছে নতুন কৌশল ও কর্মপন্থা। বিনিয়োগ বিকাশ কর্মসূচি যুক্ত করা হয়েছে। বাকি কর্মসূচিগুলো হচ্ছে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প, যা আগামী বছরে পল্লি সঞ্চয় ব্যাংক নামে পুরোদমে কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে। এরপর রয়েছে আশ্রয়ণ প্রকল্প, ডিজিটাল বাংলাদেশ, শিক্ষা সহায়তা কর্মসূচি, নারীর ক্ষমতায়ন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, কমিউনিট কিনিক ও শিশু বিকাশ এবং সামষ্টিক নিরাপত্তা কর্মসূচি। এতে নতুন সংযোজিত হয়েছে বিনিয়োগ বিকাশ কর্মসূচি। এই কর্মসূচির বাইরে পরিবেশ সুরক্ষা নামে আরও একটি কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।বিদ্যমান বিনিয়োগের সক্ষমতা বাড়িয়ে উৎপাদন ও কর্মসংস্থান বাড়ানোর পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। দেশের রাজনীতির ইতিহাস, ক্ষমতার পালাবদল আর রাষ্ট্রনায়কদের খামখেয়ালিপনা, দুঃশাসনের ইতিবৃত্ত পর্যালোচনার পর দ্বিধাহীনভাবেই বর্তমান সময়কে সবচেয়ে ভাল সময় বলা যায়।