পোশাক শিল্পে বাংলাদেশের অগ্রগতি অনুকরণীয়

বাংলাদেশের উদীয়মান তৈরি পোশাক শিল্প অচিরেই বিশ্বের শীর্ষস্থান দখল করবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘের বাণিজ্য ও উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা আঙ্কটাড এর মহাসচিব ড. মুখিসা কিটুই। তিনি বলেন, তৈরি পোশাক শিল্পখাতে বাংলাদেশের অগ্রগতির দৃষ্টান্ত বিশ্বের যে কোনো দেশের জন্য অনুকরণীয়। কেনিয়া সফররত শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সঙ্গে বৈঠককালে আঙ্কটাডের মহাসচিব এ অভিমত ব্যক্ত করেন। নাইরোবীর কেনিয়া ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে মঙ্গলবার এ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শিল্পমন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বৈঠকে বাংলাদেশসহ স্বল্পোন্নত দেশগুলোর শিল্পায়ন ও বিনিয়োগ প্রবাহ বাড়াতে আঙ্কটাডের সহায়তা জোরদারের বিষয়ে আলোচনা হয়। এ সময় বাংলাদেশের উদীয়মান চামড়া, প্লাস্টিক, ওষুধ শিল্পের উন্নয়নের পাশাপাশি কেনিয়ায় বাংলাদেশি দক্ষ শ্রমিক আমদানির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। বৈঠকে আঙ্কটাডের মহাসচিব বাংলাদেশের চামড়া, প্ল­াস্টিক, ওষুধ শিল্পের অগ্রগতির ভূয়সী প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, এ তিনটি শিল্পখাতে বাংলাদেশের অর্জন বিশ্বের অন্য দেশের জন্য রোল মডেল হতে পারে। সামগ্রিক শিল্পখাতের অগ্রগতি সম্পর্কে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য আঙ্কটাডের একটি প্রতিনিধি দল শীঘ্রই বাংলাদেশ সফরে আসবে বলে তিনি জানান। আঙ্কটাডের মহাসচিব বলেন, কেনিয়ায় এখনো প্রচুর পরিমাণে অব্যবহূত জমি রয়েছে। এসব জমিতে তুলা চাষ করে সুতা উত্পাদনের সুযোগ রয়েছে। তুলা থেকে সুতা উত্পাদনের লক্ষ্যে তিনি বাংলাদেশ থেকে দক্ষ তুলা চাষি ও অভিজ্ঞ শ্রমিক আমদানির বিষয়ে শিল্পমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্প ইতোমধ্যে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা, উদ্যোক্তাদের দক্ষতা এবং মনোবলের কারণে বিশ্বমন্দার মাঝেও বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে। তিনি বাংলাদেশ থেকে দক্ষ তুলা চাষি ও শ্রমিক আমদানির বিষয়ে আঙ্কটাড মহাসচিবের প্রস্তাবকে স্বাগত জানান। এ বিষয়ে কেনিয়া সরকারের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পেলে বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেবে বলে তিনি উল্লে­খ করেন।