‘নাজুক দেশের তালিকায়’ বাংলাদেশের উন্নতি

যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি গবেষণা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘দ্য ফান্ড ফর পিস’-এর ‘নাজুক দেশের তালিকায়’ বাংলাদেশের অবস্থার উন্নতি হয়েছে। বিশ্বের ১৭৮টি দেশ নিয়ে সংস্থাটির করা এই তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে ভারত, শ্রীলঙ্কা, ভুটান এবং আফগানিস্তানের উন্নতি হয়েছে; অবনতি হয়েছে পাকিস্তান, মিয়ানমার এবং নেপালের। অপরিবর্তিত রয়েছে মালদ্বীপের অবস্থান। সুত্র :বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

গতবারের তালিকায় বাংলাদেশ ছিল ৩২ নম্বরে, এবার ৩৬ নম্বরে; যার মাধ্যমে বাংলাদেশে স্থিতিশীলতা বাড়ার বিষয়টি উঠে এসেছে।

ফ্র্যাজাইল স্টেটস ইনডেক্স ২০১৬ নামের ওই তালিকা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাময়িকী ফরেন পলিসির এক প্রতিবেদনে দীর্ঘদিন ধরে চলমান সঙ্কটের দেশের, এমনকি মহাদেশের সীমান্ত ছাড়িয়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা যে কত কম সময়ে বৈশ্বিক রূপ নিতে পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকতে বলা হয়েছে।

গত বছর সিরিয়া থেকে নাইজেরিয়া পর্যন্ত গোলযোগের বিরূপ প্রভাব হাজার হাজার মাইল দূরেও দেখা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে এই প্রতিবেদনে।

যুদ্ধ, শান্তিচুক্তি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও রাজনৈতিক আন্দোলন কীভাবে কোনো দেশকে স্থিতিশীলতার দিকে বা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যায় তা বিশ্লেষণে ১২ বছর ধরে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকসহ ১২টি সূচকের ভিত্তিতে এই তালিকা করে আসছে ওয়াশিংটনভিত্তিক সংস্থাটি। এতে সবচেয়ে নাজুক দেশের নাম রাখা হয় সবার উপরে।

প্রতিবেদনে ২০১১ সাল থেকে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের প্রভাব মধ্যপ্রাচ্যে সীমাবদ্ধ থাকার কথা উল্লেখ করে বলা হয়, ২০১৫ সালে সেই প্রভাব ইউরোপে ছড়িয়েছে ১০ লাখের বেশি আশ্রয়প্রার্থী যাওয়ার মাধ্যমে। তাদের জন্য ইউরোপে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে; অনেক দেশ আগের ভালো অবস্থান হারিয়েছে।

সংস্থাটির এবারের তালিকায় সবচেয়ে নাজুক দেশ সোমালিয়া গতবার ছিল দ্বিতীয় স্থানে। আর সবচেয়ে ‘টেকসই দেশ’ এবারও ফিনল্যান্ড। ২০১৫ সালের নাজুক দেশের তালিকার এক নম্বরে থাকা সাউথ সুদান এবারের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

নতুন তালিকায় সিরিয়ার অবস্থান ৬ নম্বরে; গতবার ছিল ৯ নম্বরে। নতুন তালিকায় আফগানিস্তানের অবস্থান ৯ নম্বরে; গতবার ছিল ৮ নম্বরে। পাকিস্তানের অবস্থান ছিল ১৪ নম্বর। এবার তাদের অবস্থান ১৩ নম্বরে।গতবার মিয়ানমার ছিল ২৭ নম্বরে; এবার ২৬ নম্বরে। নেপালের এবারের অবস্থান ৩৩ নম্বরে; গতবার ছিল ৩৬ নম্বরে।

তালিকায় বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভালো করেছে শ্রীলঙ্কা। গতবার দেশটির অবস্থান ছিল ৩৪ নম্বরে; এবার ৪৩ নম্বরে। নতুন তালিকায় ভারতের অবস্থান ৭০ নম্বরে; গতবার ছিল ৬৮ নম্বরে। তালিকায় ভুটানের অবস্থান ৭৮ নম্বরে; গতবার ছিল ৭৪ নম্বরে। তালিকায় গতবারের মতো এবারও ৯১ নম্বরে রয়েছে মালদ্বীপ।