জামানতবিহীন ঋণ ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ নিয়ে এলো ন্যাশনাল ব্যাংক

প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করতে জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছে ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড। শনিবার রাজধানীর সীমান্ত স্কয়ারে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই সেবার উদ্বোধন করেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জয়নুল হক সিকদার। সংবাদ সম্মেলনে জয়নুল হক সিকদার বলেন, আমাদের প্রস্তাবিত ঋণ প্রকল্পটি সম্ভব সকল প্রকার ছাড় দিয়ে প্রান্তিক ব্যবসায়ীদের কাছে সহজলভ্য করার চেষ্টা করেছি। ‘দারিদ্র্য মুক্তি’ ঋণ মূলত ক্ষুদ্র ও অতি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ও পেশাজীবী, হস্তশিল্প, কুটির শিল্প এবং প্রান্তিক ও ভূমিহীন কৃষকদের ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনতে এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য চালু করা হয়েছে। এ সকল উদ্যোক্তা পেশাজীবী, কৃষক ন্যূনতম ১০ টাকার হিসাব খুলে তাদের ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে। যেমন, কামার, কুমার, জেলে, দর্জি, ফুল বিক্রেতা, তাঁতী কনফেকশনারিসহ খাবার প্রস্তুতকারী উদ্যোক্তা, প্রান্তিক চাষী ও ব্যবসায়ীরা জামানতবিহীন সহজলভ্য এই ঋণ সুবিধার আওতায় বিবেচিত হবেন।

তিনি বলেন, সর্বোচ্চ আঠারো মাস অথবা আবর্তনশীল এ ঋণ সুবিধা গ্রাহক প্রতি সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা করে বার্ষিক ৫ শতাংশ করে সরল সুদে বিতরণ করা হবে। এই ঋণ কর্মসূচীর মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে অবহেলিত, দুর্যোগগ্রস্ত দারিদ্র্যসীমার নিচে অবস্থানরত জনসাধারণকে ঋণ গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি যাতে করে তারা কর্মক্ষম ও আয় উৎসারী কর্মকা-ে নিয়োজিত হয়ে তাদের জীবন-যাত্রার মান উন্নয়নপূর্বক দরিদ্রতা ও অর্থনৈতিক অসচ্ছলতা থেকে মুক্তি পায়। তিনি আরও বলেন, দেশের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত দীর্ঘ অবহেলিত ছিটমহলসমূহে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড ২টি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ১টি পলিটেকনিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ স্থাপন করেছে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক পারভীন হক সিকদার, মোয়াজ্জেম হোসেন, রন হক সিকদার, স্বতন্ত্র পরিচালক মোঃ আনোয়ার হোসেন ও মোঃ মাহাবুবুর রহমান খান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এফ এম শরিফুল ইসলাম, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক চৌধুরী মোশতাক আহমেদ ও মোঃ বদিউল আলম, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এস এম বুলবুল, আব্দুস সোবহান খান, শাহ্ সৈয়দ আব্দুল বারী ও মোঃ ফরিদ উদ্দিন আহাম্মেদ প্রমুখ।