খাঁচার মাছে দিনবদল

হুরাসাগর নদীতে ভাসমান খাঁচায় বাণিজ্যিক ভিত্তিতে মাছ চাষ করে দিন বদল করেছেন পাবনার বেড়া উপজেলার হরিদেবপুর গ্রামের আলহাজ আলী হাসান বাদশা। তার সফলতায় উদ্বুদ্ধ হয়ে এলাকার বেকার যুবকরা ঝুঁকছেন এ পেশায়। অল্প পুঁজিতে কম সময়ে অধিক লাভ পাওয়ায় দিন দিন ওই এলাকায় খাঁচায় মাছ চাষের ব্যাপকাতা বাড়ছে। এতে সচ্ছলতা ফিরে আসছে দরিদ্র পরিবারগুলোয়; চাঙ্গা হচ্ছে অর্থনীতি। বাদশা জানান, এইচএসসি পাস করে বেকার অবস্থায় দিন কাটে তার। চাঁদপুর ডাকাতিয়া নদীতে উভয় তীরে গড়ে উঠেছে হাজার হাজার তেলাপিয়ার খাঁচাÑ টেলিভিশনে এমন প্রতিবেদন দেখে তিনি তার বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলেন। এরই মধ্যে সিরাজগঞ্জের কয়েক বন্ধু খাঁচায় মাছ চাষ শুরু করে লাভবান হন। তাদের অনুপ্রেরণায় ও পরামর্র্শে তিনিও খাঁচায় মাছ চাষের সিদ্ধান্ত নেন। এর পর হুরাসাগর নদীতে ৩৫টি খাঁচা বানিয়ে মোনোসেক্স তেলাপিয়া চাষ শুরু করেন। এ বিষয়ে তার কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না। তিনি আরও জানান, একবার খাঁচা তৈরি করলে অনেক দিন ব্যাবহার করা যায়। সারা বছর এ পদ্ধতিতে নদীতে মাছ চাষ করা যায়। প্রতিটি খাঁচা তৈরি করতে খরচ হয় ৮ হাজার ২৫০ টাকা। আর প্রতি খাঁচায় মাছের পোনা, খাদ্য ও লেবার বাবদ খরচ হয় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। অন্যান্য খরচ দিয়ে প্রায় ৪৫ হাজার টাকা ব্যয় হয়। এ পরিমাণ খরচ করে ৪০ দিনে একটি খাঁচা থেকে ৬০ হাজার টাকার মাছ বিক্রি করা যায়। তিনি আরও জানান, ৩৫টি খাঁচায় মাছ চাষ করতে খরচ হবে প্রায় ১৫ থেকে ১৮ লাখ টাকা। আর ৩৫টি খাঁচায় মাছ চাষ করে সব খরচ বাদ দিয়ে প্রতি বছর গড়ে প্রায় ১০ লাখ টাকা লাভ করা সম্ভব। একটি খাঁচায় ১ হাজার পোনা মাছ চাষ করা যায়। খাঁচায় পোনা ছাড়ার দিন থেকে ৪০ দিনের মধ্যে মাছ বাজারে বিক্রি করার উপযুক্ত হয়। প্রতিটি খাঁচায় প্রায় ৫০০ কেজি মাছ পাওয়া যায়। বাদশা বলেন, চীনে এ পদ্ধতিতে মাছ চাষের ব্যাপক প্রচলন রয়েছে। তাই দেশের প্রতিটি প্রবহমান নদীতে ভাসমান পদ্ধতিতে মাছ চাষ শুরু হলে একদিকে যেমন দেশে মাছের চাহিদা মিটিয়ে রফতানির সুযোগ তৈরি হবে, অন্যদিকে দূর হবে বেকারত্ব। বেড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ কামরুল হোসেন সরকার বলেন, খাঁচায় মোনোসেক্স তেলাপিয়া মাছ চাষ করে দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা সম্ভব। নদীর প্রবহমান পানিতে খাঁচায় মাছ চাষ করলে পুকুর তৈরির খরচ এবং ভূমি ব্যবহার থেকেও বাঁচা যায়। এছাড়া মোনোসেক্স তেলাপিয়া মাছ খুবই সুস্বাদু মাছ। তিনি বলেন, বেকার যুবকরা সবাই খাঁচায় মাছ চাষ করে নিজেদের এবং দেশের অর্থনীতিকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিতে পারে।