৪ আমিরাতি শিশুকে বাঁচাতে বাংলাদেশি আয়ার জীবন বিসর্জন

দুই বছর আগে বাংলাদেশি এক আয়া আমিরাতের চারটি শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে নিজের জীবন দিয়েছেন। ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর আবু আবদুল্লাহ তার পরিবার নিয়ে আবু দাবির দাবাইয়া সমুদ্র সৈকতে সাপ্তাহিক পিকনিকে যান। তার সন্তানরা একসময় পিছলে গভীর সমুদ্রে চলে যায়। সুফিয়া লাফ দিয়ে গভীর সমুদ্রে নেমে যান এবং এই শিশুদের উদ্ধার করেন। সুফিয়া আক্তার শিশুদের দেখাশুনার দায়িত্বে ছিলেন। খবর গালফ নিউজের।
শিশুদের জীবন বাঁচাতে পারলেও সুফিয়া সমুদ্রের ঢেওয়ের তোড়ে ভেসে যান। উদ্ধারকৃত শিশুদের বাবা আবু-আব্দুল্লাহ সমুদ্রে ঝাঁপিয়ে তাকে উদ্ধার করার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি সুফিয়াকে উদ্ধারে ব্যর্থ হন। পরবর্তীতে তার লাশ তীরে ফিরে আসলে তাকে মাফরাক হাসপাতালে নিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়।
শিশুদের মা বলেন, ‘সুফিয়া খুবই ভদ্র এবং তাদের পরিবারের ঘনিষ্ঠ ছিল। বাংলাদেশে তার চার সন্তানকে স্বচ্ছল জীবন দেয়ার জন্য সুফিয়া কঠোর পরিশ্রম করত।’
‘সুফিয়া এবং তার পরিবারের প্রতি আমরা সবসময় কৃতজ্ঞ থাকব। সে আমাদের সাথে চার বছর সময় পার করেছে। আমার পরিবারের প্রতি সে খুবই বিশ্বস্ত ছিল। তার ত্যাগ ও সাহসের বিনিময়ে আমাদের শিশুরা রক্ষা পেল।’ সেজন্য তাকে ধন্যবাদ বলেন, আবু আব্দুল্লাহ।
তিনি আরও বলেন, শিশুরা বাড়িতে কোন ভুল করলে তাদের শাস্তি দিতে বারণ করত সুফিয়া। সে খুবই দয়ালু ছিল। এছাড়া তার কাজকর্মেই প্রকাশ হতো বাড়িতে একজন ভাল গৃহকর্মীর গুরুত্ব কতখানি।
সুফিয়ার এই বীরত্বপূর্ণ আত্মহুতির জন্য শিশুদের বাবা তার প্রশংসা করেন। এবং তার মহান আত্মাহুতির বিনিময়ে আব্দুল্লাহর পরিবার বাংলাদেশে তার আত্মীয়দের সহায়তা করে যাচ্ছেন বলে জানান।