লক্ষ্য ছাড়িয়েছে ভোমরা স্থলবন্দরে রাজস্ব আহরণ

চলতি অর্থবছরের (২০১৫-১৬) প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) লক্ষ্য ছাড়িয়েছে ভোমরা স্থলবন্দরের রাজস্ব আহরণের পরিমাণ। আলোচ্য সময়সীমার মধ্যে স্থলবন্দরটি থেকে রাজস্ব আহরণ হয়েছে ৫৫৬ কোটি ৯৬ লাখ ৩৯ হাজার টাকা, যা গত অর্থবছরের একই সময়সীমার তুলনায় ১৭৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকা বেশি। অন্যদিকে এ সময়ের মধ্যে ভোমরা স্থলবন্দর থেকে ৫১০ কোটি ৬৫ লাখ ৫৮ হাজার টাকা রাজস্ব আহরণের লক্ষ্য নিয়েছিল জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এ হিসাব অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে ভোমরা স্থলবন্দর থেকে লক্ষ্যের তুলনায় ৪৬ কোটি ৩০ লাখ ৮১ হাজার টাকা অতিরিক্ত রাজস্ব আহরণ হয়েছে।

জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাইয়ে ভোমরা স্থলবন্দর থেকে ৩২ কোটি ৭৫ লাখ ৮৭ হাজার টাকা রাজস্ব আহরণের লক্ষ্য নির্ধারণ করে এনবিআর। এর বিপরীতে আহরণ হয়েছে ২৬ কোটি ৭৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। এর পর আগস্টে ৪৫ কোটি ৮৯ লাখ ২০ হাজারের বিপরীতে ৩০ কোটি ৯ লাখ ১৩ হাজার, সেপ্টেম্বরে ৪৮ কোটি ১৭ লাখ ৫২ হাজারের বিপরীতে ৫৩ কোটি ২১ লাখ ৪৪ হাজার, অক্টোবরে ৪১ কোটি ৩১ লাখ ৫৯ হাজারের বিপরীতে ৫৯ কোটি ২৪ লাখ ৪৩ হাজার, নভেম্বরে ৪৭ কোটি ১৯ লাখ ৮৮ হাজারের বিপরীতে ৩৬ কোটি ৩২ লাখ ১০ হাজার, ডিসেম্বরে ৪৫ কোটি ৬৮ লাখ ৬৬ হাজারের বিপরীতে ৫৬ কোটি ৬৮ লাখ ১১ হাজার, জানুয়ারিতে ৫৮ কোটি ৮৬ লাখ ৮৩ হাজারের বিপরীতে ৫৯ কোটি ২ লাখ ৩৩ হাজার, ফেব্রুয়ারিতে ৬৫ কোটি ৭ লাখ ২১ হাজারের বিপরীতে ৭০ কোটি ৮৯ লাখ ৩৭ হাজার, মার্চে ৭৩ কোটি ৪২ লাখ ৪৭ হাজারের বিপরীতে ৯২ কোটি ৩৬ লাখ ৫০ হাজার ও এপ্রিলে ৫২ কোটি ২৯ লাখ ৩২ হাজারের বিপরীতে ৬৬ কোটি ৩১ লাখ ৬৩ হাজার টাকা রাজস্ব আহরণ করা হয়।

সব মিলিয়ে ভোমরা স্থলবন্দর থেকে চলতি বছরের জুলাই-এপ্রিল সময়সীমায় ৫১০ কোটি ৬৫ লাখ ৫৫ হাজার টাকার রাজস্ব লক্ষ্যের বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৫৫৬ কোটি ৯৬ লাখ ৩৯ হাজার টাকা। অন্যদিকে গত অর্থবছরের (২০১৪-১৫) একই সময়সীমার মধ্যে স্থলবন্দরটি থেকে রাজস্ব আহরণ হয়েছিল ৩৮৩ কোটি ১০ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে ভোমরা স্থলবন্দর শুল্ক স্টেশনে কাস্টমসের বিভাগীয় সহকারী কমিশনার সানোয়ারুল কবির জানান, চলতি অর্থবছরে এখানকার রাজস্ব আহরণ খুবই ভালো। এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও আমদানি-রফতানিকারকরা একসঙ্গে সুষ্ঠুভাবে কাজ করতে পারলে রাজস্ব আহরণ যেমন বাড়বে, তেমনি ব্যবসা-বাণিজ্যেরও প্রসার ঘটবে। এছাড়া ভোমরা বন্দরের অবকাঠামো উন্নয়নও বর্তমানে জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

উল্লেখ্য, গত অর্থবছর ভোমরা স্থলবন্দর থেকে এনবিআরের রাজস্ব আহরণের লক্ষ্য ছিল ১৬৪ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর এখান থেকে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্য বেড়েছে তিন গুণেরও বেশি। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে স্থলবন্দরটি থেকে এনবিআরের রাজস্ব আহরণের লক্ষ্য ৬০০ কোটি টাকা।