বিশ্বে প্রথম মোটরবাইক ভাড়ার ই-হেইলিং প্লাটফর্ম ‘স্যাম’ চালু হলো ঢাকায়

মোটরসাইকেলের মাধ্যমে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছানোর সুযোগ করে দিতে দেশে চালু হলো সেলফোন অ্যাপ্লিকেশন ‘শেয়ার এ মোটরসাইকেল (স্যাম)’। মোটরবাইককেন্দ্রিক ই-হেইলিং প্লাটফর্ম বিশ্বে এটিই প্রথম। গতকাল রাজধানীতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে স্যামের উদ্বোধন করা হয়। মোটরবাইকভিত্তিক ই-হেইলিং অ্যাপ্লিকেশনটি তৈরি করেছে ডাটাভক্সেল লিমিটেড।

কম্পিউটার বা সেলফোনের মাধ্যমে নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ট্যাক্সি, কার, বাসসহ যেকোনো ধরনের যানবাহন ভাড়া নিতে ব্যবহার করা হয় ই-হেইলিং প্লাটফর্ম। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এ ধরনের প্লাটফর্ম। এর সঙ্গে বাংলাদেশে যুক্ত হলো মোটরবাইক। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ঢাকা শহরে চার লাখেরও বেশি ব্যক্তিগত মোটরসাইকেল রয়েছে, যা দিয়ে প্রতিদিন চার লাখেরও বেশি যাত্রী পরিবহন করা সম্ভব। আর এ চিন্তা থেকেই ডাটাভক্সেল লিমিটেড স্যাম নামের নতুন এ পরিকল্পনা নিয়ে এসেছে। স্যাম অত্যন্ত সাশ্রয়ী খরচে দ্রুত, নিরাপদ ও আরামদায়কভাবে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দিতে সাহায্য করবে। যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত কয়েকজন বাংলাদেশী ও ভারতীয় প্রকৌশলী অ্যাপসটি তৈরি করেছেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডাটাভক্সেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইমতিয়াজ কাসেম জানান, প্রকল্পটি সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে বড় ভূমিকা রাখবে। ভবিষ্যতে এ সেবার মাধ্যমে পার্সেল ও ওষুধ সরবরাহেরও লক্ষ্য রয়েছে ডাটাভক্সেলের।

অ্যাপটি রাইডারের (যাত্রী) সঙ্গে বাইকারের (ব্যক্তিগত মোটরসাইকেলের মালিক) সংযোগ করিয়ে দেবে। বাইকার ও রাইডার স্যাম অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে একই গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবে। পাশাপাশি অ্যাপটির মাধ্যমে যাত্রীরা অর্থ পরিশোধও করতে পারবেন। স্যাম অ্যাপটি সামাজিক সুবিধা প্রদানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে অনুষ্ঠানে আশা প্রকাশ করা হয়।

এ সুবিধা গ্রহণের পদ্ধতি সম্পর্কে অনুষ্ঠানে জানানো হয়, যাত্রীকে তার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে রাইডার অ্যাপটি ইনস্টল করতে হবে। একইভাবে মোটরসাইকেল মালিকদের স্যাম বাইকার অ্যাপটি ইনস্টল করতে হবে। ইনস্টল করা অ্যাপে বাইকার ও রাইডার লগ ইন করে রাইডার তার যাত্রার জন্য একটি অনুরোধ পাঠাতে পারবেন, যা তার দুই কিলোমিটার এলাকার মধ্যে অবস্থিত সব বাইকারের কাছে পৌঁছে যাবে। একই গন্তব্য অভিমুখী বাইকার রাইডারের অনুরোধটি গ্রহণ করতে পারবে ও এগিয়ে গিয়ে রাইডারকে তুলে নেবেন। মাইলেজ মিটারটি দূরত্ব নির্ধারণ করে সে অনুযায়ী বিল নির্দেশ করবে। নগদের বদলে স্যাম অ্যাপসের ই-ওয়ালেটের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিল পরিশোধ করা যাবে। পাশাপাশি রাইডের অনুরোধ করা কিংবা তা অনুমোদনের আগে রাইডার ও বাইকার পরস্পরকে মূল্যায়নের সুযোগ পাবেন। আগামী মাসে অ্যাপলের জন্য এ অ্যাপ্লিকেশনের সংস্করণ উন্মুক্ত করা হবে।

নিরাপত্তার স্বার্থে রাইডার ও বাইকারদের সব তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করা হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর বাইরে কিছু তথ্য রাইডার ও বাইকাররা নিজেদের মধ্যে আদান-প্রদান করতে পারবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ ছাড়াও ডাটাভক্সেলের চেয়ারম্যান ইশতিয়াক কাসেম, জেনারেল ম্যানেজার খালিদ বিন সালাম, কমিউনিকেশন ডিরেক্টর এফ জেড হাসানসহ প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।