মুস্তাফিজের প্রশংসায় প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের বোলিং সেনসেশন ও কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর শেরে বাংলানগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এক অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) আমাদের মুস্তাফিজ অসাধারণ বোলিং করছে। তার কারণে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের নাম আরো উজ্জ্বল হয়েছে। বাংলাদেশকে আরো বেশি মানুষ চিনতে পেরেছে।’ বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, ক্রিকেটে বর্তমান অবস্থায় আসার পেছনে বর্তমান সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে আমি তাঁকে যেভাবে কাজ করতে বলেছি, উনি সেভাবেই কাজ করেছেন। সে জন্য ক্রিকেটে বাংলাদেশ আজ ভালো অবস্থানে পৌঁছেছে।’ ১৯৯৬ সালে ওবায়দুল কাদের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

মুস্তাফিজের বোলিং প্রশংসার বিষয়টি উঠে আসে গুলশান-বনানীতে একটি মিনি স্টেডিয়াম বানানোকে কেন্দ্র করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘গুলশান-বনানী-বারিধারায় যাঁরা বসবাস করেন, তাঁদের সন্তানরা সব ফার্মের মুরগির মতো হয়ে যাচ্ছে। সেখানে কোনো মাঠ নেই। বাচ্চারা খেলাধুলা করতে পারে না।’ গুলশান-বনানীতে একটি মিনি মাঠের জন্য জায়গা খুঁজতে পরিকল্পনামন্ত্রীকে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি গত শনিবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে মুস্তাফিজুর রহমানের চার ওভার বোলিংয়ের প্রশংসা করে বলেন, ‘সে প্রতিনিয়তই ভালো করছে। বাংলাদেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছে। দেশকে সম্মানিত করেছে। একই সঙ্গে আমাদেরকেও।’

মুস্তাফিজকে ‘জাতীয় বীর’ উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এবারের আইপিএল মুস্তাফিজুর রহমানের জন্য প্রথম। গত শনিবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে চার ওভার বল করে ৯ রান দিয়ে দুই উইকেট নিয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন মুস্তাফিজুর। ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তাঁর প্রশংসা চলছে। মুস্তাফিজুর রহমানের জন্য দোভাষী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সান রাইজার্স হায়দরাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার মুস্তাফিজুর রহমানের বোলিং নিয়ে কোন বিশেষণে বিশেষায়িত করবেন, সে নিয়ে নতুন শব্দ খুঁজে পাচ্ছেন না—এমন কথাও উঠে এসেছে গণমাধ্যমে।