১৪ ব্যক্তি ও ১ প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হচ্ছে স্বাধীনতা পুরস্কার

বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ অবদানের জন্য মোট ১৪ ব্যক্তি ও ১ প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন। এর আগে গত ৭ মার্চ সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ২০১৬ সালের স্বাধীনতা পদকের জন্য ১৪ ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠানের নাম ঘোষণা করেছিল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। দেশের সর্বোচ্চ এ রাষ্ট্রীয় পুরস্কারের জন্য মনোনিতরা হলো: প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত গঠন করায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে। মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে এই তালিকায় রয়েছেন বর্তমান সরকারের বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী মুহাম্মদ ইমাজ উদ্দিন প্রমানিক।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য আরও যারা স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন তারা হলেন- মৌলভী আচমত আলী খান (মরনোত্তর), স্কোয়ার্ডন লিডার (অব.) বদরুল আলম, বীর উত্তম, শহীদ শাহ আবদুল মজিদ (মরনোত্তর), শহীদ এম আবদুল আলী (মরনোত্তর), একেএম আবদুর রউফ, কে এম শিহাব উদ্দিন, ও সৈয়দ হাসান ইমাম।

মাতৃভাষায় অবদান রাখার জন্য স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন রফিকুল ইসলাম (মরনোত্তর) ও আবদুস সালাম। সংস্কৃতিতে রবীন্দ্র সংঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা। পাটের জীবন রহস্য আবিষ্কারের জন্য মরনোত্তর এই পদক পেয়েছেন প্রয়াত মরহুম বিজ্ঞানী অধ্যাপক মাকসুদুল আলম (মরনোত্তর)। চিকিৎসায় ডা. এম আর খান। জনসেবায় প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ নৌবাহিনী ২০১৬ সালের স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনীত হয়েছে।

স্বাধীনতা পদক দেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার। জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে প্রতি বছর স্বাধীনতা পুরস্কার দেওয়া হয়। ২৬মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সরকার ১৯৭৭ সাল থেকে প্রতি বছর এ পুরস্কার দিয়ে আসছে।