‘টেলিটকের নতুন লোগো, থ্রিজি যাবে ইউনিয়নে’

টেলিটকের মাধ্যমে ইউনিয়ন পর্যায়ে থ্রিজি নেটওয়ার্ক সমপ্রসারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। মঙ্গলবার রাজধানীর বসন্ধুরা কনভেনশন সেন্টারে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল অপারেটরটির নতুন লোগো উন্মোচনকালে তিনি এ কথা বলেন। মঙ্গলবার রাজধানীর বসন্ধুরা কনভেনশন সেন্টারে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল অপারেটরটির নতুন লোগো উন্মোচন হয়। ছবি মহুবার
স্বপ্ন হাসিমুখের সেস্নাগানে গ্রাহক সন্তুষ্টির প্রত্যয়ে রি-ব্র্যান্ডিংয়ের অংশ হিসেবে এ লোগো উন্মোচন করা হয়।
অনুষ্ঠানে তারানা হালিম বলেন, বর্তমানে টেলিটকের মোট ৪২ লাখ গ্রাহক রয়েছে। এর মধ্যে ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা ১৮ লাখ। বিভাগীয় শহর ছাড়াও ১০০টি উপজেলায় টেলিটকের থ্রিজি সেবা বিস্তৃত করা হয়েছে। প্রায় ৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। আগামী মে মাসে এর কাজ শুরু হবে। এর মাধ্যমে টেলিটকের নেটওয়ার্ক সমপ্রসারণ করা হবে।
তিনি জানান, দেশে ফোরজি নেটওয়ার্ক চালু হলে জেলা পর্যায়ে তা সমপ্রসারণ করা হবে। একই সঙ্গে ইউনিয়ন পর্যন্ত থ্রিজি নেটওর্য়াক সমপ্রসারণ করা হবে। এখন এটিএম বুথ ব্যবহার করে টেলিটকে রিচার্জ করা যায়। উপজেলা পর্যায়ে কাস্টমার কেয়ার স্থাপন করতে চাই। সব মিলিয়ে টেলিটককে প্রাইভেট সেক্টরের উপযোগী করে গড়ে তুলতে চাই।
তিনি আরও বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয়, বাস্তব। এখন ভারত বা হাঙেরি যে ডিজিটালাইজেশনের কথা বলে এর শুরু বাংলাদেশ থেকে। এসব বিবেচনা করে আমরা টেলিটকের দিকে বিশেষ দৃষ্টি দিচ্ছি। আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে টেলিটককে প্রতিযোগিতামূলক বাজারের উপযুক্ত করে তোলা। এর প্রথম ধাপ হিসেবে লোগোতে পরিবর্তন আনা হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, নতুন লোগো উন্মোচনের মাধ্যমে টেলিটক প্রতিযোগিতামূলক বাজারে প্রচারে প্রবেশ করছে। ৩টি উদ্দেশ্যে আমরা এ কাজ শুরু করেছি। এগুলো হল- কাভারেজ সমপ্রসারণ, গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জন ও লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা।
তিনি আরও বলেন, আমরা টেলিটকের দাপ্তরিক কাজের উন্নতি ঘটাতে চাই। এজন্য কর্মীদের বেতন বাড়ানোর বিষয়টি চিন্তাভাবনা করে দেখা হবে।
টেলিটকের চেয়ারম্যান ফয়জুর রহমান বলেন, টেলিটকের উদ্দেশ্য শুধু ব্যবসা নয় বরং সেবা। এর কারণে আমরা সুন্দরবন ও তিন পার্বত্য জেলায় নেটওয়ার্ক সমপ্রসারণ করেছি। এতে যে ব্যয় হয়েছে তা কতদিনে উঠে আসবে জানি না। কিন্তু এর ফলে যে সেবাটা পাওয়া যাচ্ছে তার কোন তুলনা নেই। এটা আরও বিস্তৃত হবে। টেলিটক উত্তরোত্তর উপরে উঠবে।
বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) শাহজাহান মাহমুদ বলেন, গ্রাহক বান্ধব সব উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। টেলিটকের উদ্যোগ গ্রাহকের স্বাচ্ছন্দ্য আনবে বলে আমার বিশ্বাস।
তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে আমরা চাই অপারেটরগুলো কয়েকটি বিষয়ে গুরুত্ব দিক। এগুলো হল, সারা দেশে নেটওয়ার্ক বিস্তৃতকরণ, মান নিশ্চিত করা, নতুন সেবার মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে পেঁৗছানো ও গ্রাহকসেবা নিশ্চিতকরণ। আশা করি টেলিটকও এগুলো বিবেচনা করে কোয়ালিটি ও কাস্টমার সেবা নিশ্চিত করবে। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গিয়াসউদ্দিন আহমেদ, পণ্যদূত ও নাট্য অভিনেতা জাহিদ হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।