ফেব্রুয়ারিতে মূল্যস্ফীতির হার কমে ৫ দশমিক ৬২ শতাংশ

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দেশের সার্বিক মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৬২ শতাংশে। যা গত মাসে অর্থাৎ জানুয়ারিতে ছিল ৬ দশমিক শুন্য ৭ শতাংশ।
মঙ্গলবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক বৈঠক শেষে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) মাসিক মূল্যস্ফীতির হালনাগাদ তথ্য তুলে ধরেন পরিকল্পনামন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল।
ফেব্রুয়ারি মাসে খাদ্যপণ্যের সার্বিক মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ৭৭ শতাংশে, যা জানুয়ারিতে ছিল ৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ। খাদ্য বর্হিভূত পণ্যের সার্বিক মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৪৬ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৮ দশমিক ৭৪ শতাংশ।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, বিদ্যুৎসহ কোনো পণ্যের দাম বাড়েনি, তাই উপাদন খরচও বাড়েনি। ফলে দেশে উৎপাদিত পণ্যের দাম বাড়েনি বরং কমেছে। অপরদিকে তেল-চিনিসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম বিশ্ববাজারে কমেছে। আর এই দুই কারণে দেশের মূল্যস্ফীতি কমেছে বলে তিনি মনে করেন।
তিনি আরো বলেন, গত ৪১ মাসের মধ্যে এটি সর্বনিম্ন মূল্যস্ফীতি। এর আগে ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে মূল্যস্ফীতি ছিল ৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ।
বিবিএস তথ্য অনুযায়ী, ফেব্রুয়ারি মাসে গ্রামীণ পর্যায়ে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৪ দশমিক ৭৬ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৯ শতাংশ। ফেব্রুয়ারি মাসে শহরাঞ্চলের সার্বিক মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ২২ শতাংশে, যা জানুয়ারি মাসে ছিল ৭ দশমিক ৫৩ শতাংশ।